একাধিক মামলা তাঁর বিরুদ্ধে! হস্তক্ষেপের আর্জি জানিয়ে, এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে শুভেন্দু

একাধিক মামলা তাঁর বিরুদ্ধে! হস্তক্ষেপের আর্জি জানিয়ে, এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে শুভেন্দু
একাধিক মামলা তাঁর বিরুদ্ধে! হস্তক্ষেপের আর্জি জানিয়ে, এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে শুভেন্দু

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের হয়েছে। এমনিতেই তাঁর প্রাক্তন দেহরক্ষীর মৃত্যুর তদন্ত শুরু করেছে সিআইডি। তারই মধ্যে সম্প্রতি পুলিশকে নজিরবিহীন ভাবে আক্রমণের জন্য এবং করোনা আবহে জমায়েত করায় তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা করা হয়েছে তমলুক থানায়।

আর এর জন্যই এবার হস্তক্ষেপের আর্জি জানিয়ে, হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন শুভেন্দু অধিকারী। আদালতে তিনি আবেদন জানিয়েছেন যে, হয় তাঁর বিরুদ্ধে হওয়া এফআইআর খারিজ করে দেওয়া হোক, নয়তো তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত করুক সিবিআই। রাজ্যের বিরুদ্ধে ভুয়ো মামলা করে বিরোধীদের কণ্ঠরোধের চেষ্টার অভিযোগ করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, রাজ্যে রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ করার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ এখনও জারি রয়েছে। তারপরেও সোমবার তমলুকে ৫০ জনেরও বেশি অনুগামীদের নিয়ে জনসভা করেন শুভেন্দু। সেই জনসভাতে দাঁড়িয়ে খোদ জেলা পুলিশ সুপারকে হুঁশিয়ারি দেন। তাই রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।

এই সভায় দাঁড়িয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন যে, ‘রাজ্যের অশান্তি নিয়ে কোর্টে মামলা চলছে। তাতে একাধিক পুলিশ কর্তার নাম রয়েছে। দিদিমণি, অভিষেক, কেউ বাঁচাতে পারবে না। বেছে বেছে আমাদের নেতা কর্মীদের মামলা দেওয়া হচ্ছে। এখনও সময় আছে সচেতন হন। না হলে ভবিষ্যৎ অন্ধকার।’

এরপরই তিনি সরাসরি পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এসপিকে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন যে, ‘এখানে একটা বাচ্চা ছেলে এসপি এসেছে। মিস্টার অমরনাথ কে, কী করছেন, প্রত্যেকদিন কাকে কাকে ডাকছেন, সব আমি জানি। আমি অনেক পুরনো খেলোয়াড়। মিথ্যা মামলা করে বিগত দিনেও কেউ কিছু করতে পারেনি, আজকেও পারবে না, আগামী দিনেও সেই চেষ্টা সফল হবে না। আপনাদের শুধু বলে গেলাম, আপনি সেন্ট্রাল ক্যাডারের অফিসার। এমন কাজ করবেন না যাতে কাশ্মীরের অনন্তনাগ বা বারমুলা গিয়ে ডিউটি করতে হয়।’

শুভেন্দু অধিকারী হুঁশিয়ারির সুরে বলেন যে, ‘প্রত্যেকটা ফোন, কল রেকর্ড আমাদের কাছে আছে। চটিমণি, পিসিমণি কেউ আপনাদের বাঁচাতে পারবে না। আপনাদের হাতে যদি রাজ্যের সরকার থাকে তবে আমাদের কাছেও কেন্দ্রের সরকার আছে। নরেন্দ্র মোদী কাশ্মীরকে সিধে করেছেন।’ এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে সরকারি আধিকারিকদের ফোনে আড়িপাতার অভিযোগে অফিসিয়াল সিক্রেটস আইনে শুভেন্দুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

এবার পুলিশের বিরুদ্ধে পাল্টা সুর চড়িয়েছে শুভেন্দুও। যেদিন মামলা দায়ের করা হয়, সেদিইনি তিনি বলেছিলেন যে, ‘কোভিডবিধি ভেঙে পেট্রোল-ডিজেল নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ করেছে তৃণমূল। এক হাজারটা ভিডিয়ো ক্লিপ দেখিয়ে দেব। এসব দলদাস পুলিশ। এসব করে কিছু করতে পারবে না।’ তিনি এও দাবি করেছেন যে, ‘মামলা তো করবেই। পুলিশের কাজ মামলা করা।’ তবে, এবার হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন রাজ্য়ের বিরোধী দলনেতা।