‘শুভেন্দুর লালবাতি নিভবে, তাঁর তৃণমূলে ফেরা শুধু সময়ের অপেক্ষা’! বিস্ফোরক মন্তব্য সৌমেনের

‘শুভেন্দুর লালবাতি নিভবে, তাঁর তৃণমূলে ফেরা শুধু সময়ের অপেক্ষা’! বিস্ফোরক মন্তব্য সৌমেনের
‘শুভেন্দুর লালবাতি নিভবে, তাঁর তৃণমূলে ফেরা শুধু সময়ের অপেক্ষা’! বিস্ফোরক মন্তব্য সৌমেনের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বাংলার একুশের নির্বাচনের আগে যে দু’জন নেতার তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া নিয়ে বেশি চর্চা হয়েছিল, তাঁরা হলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই বিজেপি থেকে ফের তৃণমূলে ফিরেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন সৌমেন মহাপাত্র। তাঁর দাবি, কিছুদিনের মধ্যেই ফের তৃণমূলে ফিরবেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।

তিনি মন্তব্য করেছেন, ‘বিরোধী দলনেতার লালবাতি নিভছে কিছুদিনের মধ্যে। তিনি তৃণমূলে ভিড়তে পারেন। শুধু সময়ের অপেক্ষা।’ সৌমেনের এই মন্তব্যের পরেই তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। উল্লেখ্য, রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে যারা যারা তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে গিয়েছিলেন, তাঁদের মধ্যে অনেকেই ইতিমধ্যেই ফের তৃণমূলে ফিরে গিয়েছেন। কাজেই আগামী দিনে তাঁরও তৃণমূলে যোগদান শুধুই সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন সৌমেন মহাপাত্র। এখানেই শেষ নয়, তাঁর আরও দাবি, খুব শীঘ্রই বিজেপির আসন সংখ্যা ৩০ এর নীচে নেমে আসবে। তিনি বলেন, ‘শুধু সময়ের অপেক্ষা। শুভেন্দু নিজেও ফিরে আসতে পারেন। নন্দীগ্রাম বিধানসভার ফলাফল নিয়ে আদালতে এই মুহূর্তে মামলা চলছে। সেই মামলার রায় বেরোলে তিনি আর বিরোধী দলনেতা থাকবেন না।’

রবিবার কেন্দ্রীয় সরকারের স্বৈরতান্ত্রিক মনোভাবের বিরুদ্ধে, পেট্রোল ডিজেল, রান্নার গ্যাস সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের প্রতিবাদে এবং কেন্দ্রীয় সরকারের সিবিআই দ্বারা নন্দীগ্রামের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কর্মীদের মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন সৌমেন মহাপাত্র। নন্দীগ্রামের সীতানন্দ কলেজ মাঠে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের সভায় উপস্থিত হয়ে শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রাজ্যের সেচ ও জলপথ মন্ত্রী। এদিন ধিক্কার সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সুব্রত বক্সী, তৃণমূল নেতা পূর্ণেন্দু বসু, সাংসদ দোলা সেন, বিধায়ক তিলক চক্রবর্তী, তৃণমূল কংগ্রেসের তমলুক জেলা সংগঠনের সভাপতি দেবপ্রসাদ মণ্ডল, সেখ সুফিয়ান সহ একাধিক নেতা কর্মী। এদিনের সভা মঞ্চ থেকে ঘোষণা হয়, আগামী ১০ নভেম্বর নন্দীগ্রাম শহীদ দিবস উদযাপন করা হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ও। তিনি বলেন, ‘রাগ করিস না শুভেন্দু, অনেক কথা বলে ফেলেছি। আর রাগ করিস না। কখন কোনদিন তুইও চলে আসবি, আমার থেকে অনেক কাছের হয়ে উঠবি তৃণমূলের।’ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রত্যাবর্তনের পরই এমন বক্তব্য রাখতে শোনা যায় কল্যাণকে।