জল্পনার অবসান! রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন স্বপন দাশগুপ্ত

জল্পনার অবসান! রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন স্বপন দাশগুপ্ত / Image Source- Screengrab from Facebook Video Posted By @swapan55
জল্পনার অবসান! রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন স্বপন দাশগুপ্ত / Image Source- Screengrab from Facebook Video Posted By @swapan55

অবশেষে যাবতীয় জল্পনার অবসান! রাজ্যসভার মনোনীত সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন স্বপন দাশগুপ্ত। ফলে বিজেপি-র হয়ে তারকেশ্বর থেকে প্রার্থী হতে আর কোনও বাধা রইল না তাঁর। হুগলি জেলার তারকেশ্বর বিধানসভা আসন বিজেপি প্রার্থী হিসাবে ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন স্বপন। কিন্তু রাজ্যসভার মনোনীত এই সাংসদ এত দিন কোনও রাজনৈতিক দলের সদস্যই ছিলেন না।

সোমবার রাতেই বিষয়টি প্রকাশ্যে এনেছিলেন কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। মহুয়া জানান, “পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে স্বপন দাশগুপ্ত বিজেপির প্রার্থী। সংবিধানের দশম তফসিলে বলা রয়েছে, রাজ্যসভার কোনও মনোনীত সদস্য শপথগ্রহণ করার ৬ মাস পর যদি কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেন, তাহলে তাঁর সদস্যপদ বাতিল হয়ে যাবে। ২০১৬-র এপ্রিলে স্বপন শপথ নেন। কিন্তু এখনও কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নন। বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার জন্য এখনই তাঁর সদস্যপদ বাতিল করতে হবে।” এরপরই মঙ্গলবার রাজ্যসভা থেকে ইস্তফা দিলেন স্বপন দাশগুপ্ত।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের এপ্রিল স্বপন দাশগুপ্তকে রাজ্যসভায় মনোনীত করেছিলেন রাষ্ট্রপতি। সংবিধানের দশম তফসিল অনুযায়ী, সংবিধানের ৯৯ ধারা বা ১৮৮ ধারা মেনে শপথগ্রহণের ছ’মাসের পর কোনও মনোনীত সদস্য যদি কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেন, তাহলে তাঁর সদস্যপদ খারিজ হয়ে যাবে। তাই বিজেপির হয়ে ভোটে লড়বার জন্য এবার নিজেই ইস্তফা দিলেন স্বপন। ইতিমধ্যেই রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম বেঙ্কাইয়া নায়ডুকে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন স্বপন। যদিও সেই ইস্তফা এখনও গৃহীত হয়নি।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.