কুকুর আর ইঁদুরের প্রস্রাব থেকে ছড়াচ্ছে মারণ রোগের ভাইরাস! সতর্কবার্তা দিল স্বাস্থ্য দপ্তর

কুকুর আর ইঁদুরের প্রস্রাব থেকে ছড়াচ্ছে মারণ রোগের ভাইরাস! সতর্কবার্তা দিল স্বাস্থ্য দপ্তর/ ছবি প্রতীকী
কুকুর আর ইঁদুরের প্রস্রাব থেকে ছড়াচ্ছে মারণ রোগের ভাইরাস! সতর্কবার্তা দিল স্বাস্থ্য দপ্তর/ ছবি প্রতীকী

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকেই এখনও মুক্ত নয় দেশ তারমধ্যেই আবারও নতুন এক ভাইরাস নিয়ে জনগণকে সতর্কবার্তা দিল স্বাস্থ্য দপ্তর। এই ভাইরাসও মারণ রোগ ডেকে আনে। তাই বিশেষ ভাবে সতর্ক থাকুন এই ভাইরাস থেকে বার্তা রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে। কুকুর এবং ইঁদুরের মুত্র থেকে ছড়াচ্ছে এই রোগ। কুকুর বা ইঁদুরের মুত্র রাস্তার জলের সঙ্গে মিশে মানুষের ত্বকের সংস্পর্শে এলেই মানুষের শরীরে ঢুকছে এই ভাইরাস। এই ভাইরাসের মৃত্যুও হতে পারে। সমীক্ষায় দেখাও গেছে এই ভাইরাসে মৃত্যুর প্রচুর প্রবনতা রয়েছে।

এই ভাইরাসের নাম লেপটোস্পাইরোসিস। মুলত বিভিন্ন গবাদি পশুর মধ্যে স্পাইরাল ব্যাকটেরিয়ার দেখা মেলে। আর তা থেকেই ছড়ায় এই মারণ রোগ। এই ব্যাকটেরিয়ায় আক্রান্ত কুকুর অথবা ইঁদুরের প্রস্রাবে প্রচুর পরিমানে থাকে এই ভাইরাস। সেই মুত্র রাস্তায় জলের সংস্পর্শে এলে অথবা রাস্তায় সেই মুত্র কেও মাড়িয়ে এলে ত্বকের সংস্পর্শে এসে ব্যাকটেরিয়া মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। আর বর্ষার সময় স্যাতস্যতে পরিবেশে এই ভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি।

কুকুর বা অন্য পশুদের এই ব্যাকটেরিয়া পা দিয়ে এলে শরীরে রোগের লক্ষন দেখা যায় প্রায় ৫-১৪ দিন পর অথবা কোনও সময় ১ মাস পরেও দেখা যায়। এই রোগের উপসর্গগুলি হল চোখ লাল হওয়া, ঘাড় শক্ত হয়ে যাওয়া, আচমকা জন্ডিস, তলপেটে ব্যাথা। তাই এই মরসুমে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে দেওয়া হল বিশেষ নির্দেশিকা। রাস্তায় বা ঘরে জমা জল পরিস্কার করে ফেলুন। সতর্কতার সঙ্গে হাঁটা চলা করুন।