ডাবের জলেই শরীর হবে তরতাজা, জেনে নিন এর গুনাগুন সম্পর্কে

ডাবের জলেই শরীর হবে তরতাজা, জেনে নিন এর গুনাগুন সম্পর্কে
ডাবের জলেই শরীর হবে তরতাজা, জেনে নিন এর গুনাগুন সম্পর্কে

বাইরে বেরোলে গরমের দিনে আমরা হয়তো একটা কোল্ড ড্রিংক কিনে খেয়ে নিই। কিন্তু তাতে করে সাময়িক আরামবোধ হলেও আখেরে এটা শরীরের ক্ষতিসাধন হলো। কিন্তু সেই জায়গায় যদি আমরা একটা ডাব কিনে তার জল পান করি তাহলে পেয়ে এত সব স্বাস্থ্য গুনাগুন।

একটি ডাবে দুধের চেয়েও বেশি পুষ্টি থাকে কারণ এতে কোলেস্টেরল এবং চর্বি থাকে না তার বদলে থাকে শুধুই ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন-সি, ফসফরাস, পটাসিয়াম এবং সোডিয়াম এ ছাড়াও এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা পুরো শরীরকে শক্তি যোগায়।

তাই প্রতিদিন সম্ভব না হলেও সপ্তাহে অন্তত দুবার যদি একটি করে ডাবের জল পান করতে পারেন সেটি খুবই উপকারী হবে। ডাবের হলে থাকা ভিটামিন-ই এবং অন্যান্য চর্বি-দ্রবণীয় ভিটামিন সমৃদ্ধ যা শরীরের মেদ কমিয়ে মানুষকে ফিট থাকতে সাহায্য করে।

নিয়মিত ডাবের জল করলে আমরা আরও যে উপকারিতাগুলো পাবো সেগুলি হলো-
ডিহাইড্রেশন বা শরীরে জলের ঘাটতি দূর করে শারীরিক ভারসাম্য বজায় রাখে।
রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ কম রাখে দাবি। ফলে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে।
ত্বকের তৈলাক্তভাব, ব্রণ, রোদে পোড়া ইত্যাদি সব দাগ দূর করতে সাহায্য করে এটি।
আমাদের শরীরের জন্য উপকারী কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়িয়ে হঠাৎ হার্ট অ্যাটাক হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।

ডাবের জলে উপস্থিত অ্যান্টিএজিং উপাদান যা শরীরের কোষকে সতেজ করে রাখে ফলে আপনার ত্বকের বয়স ধরে রাখে। তাই সহজে বয়সের ছাপ পড়ে না, তারুণ্য বজায় থাকে। ডাবের জল ক্লান্তি দূর করে, কর্মশক্তি বাড়াতেও বিশেষ সাহায্য করে। এটি হজম ক্ষমতা বাড়ায়, ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখে। ডাবের জলকে খাবার স্যালাইন ওয়াটার এর বিকল্প হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। থাইরয়েড হরমোনের উৎপাদন বাড়ায় ডাবের জল। রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতেও এর জুড়ি মেলা ভার। ইউরিন ইনফেকশন এর মত সমস্যা থেকে দূরে রাখে