আসন্ন বিধানসভা লড়াইয়ে চ্যালেঞ্জ দিয়ে নন্দীগ্রামকেই বেছে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী! ১০ই মার্চ দেবেন মনোনয়ন

আসন্ন বিধানসভা লড়াইয়ে চ্যালেঞ্জ দিয়ে নন্দীগ্রামকেই বেছে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী! ১০ই মার্চ দেবেন মনোনয়ন
আসন্ন বিধানসভা লড়াইয়ে চ্যালেঞ্জ দিয়ে নন্দীগ্রামকেই বেছে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী! ১০ই মার্চ দেবেন মনোনয়ন / নিজস্ব ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ রাজ্যের দৌড়গোড়ায় ২০২১ এর বিধানসভা ভোট। রাজ্যের শাসক দলে কে আধিপত্ত বিস্তার করবে তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক বিরোধ। রাজনৈতিক দলগুলি তাঁদের অবস্থান পাকাপক্ত করতে আসরে নেমে পড়েছে। অবশেষে আজ তৃণমূলের প্রার্থী ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। আর তিনি আজ উল্লেখ করেন তিনি শুধুমাত্র নন্দীগ্রাম থেকেই দাঁড়াবেন। আর ভবানীপুর ছেড়ে দেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের হাতে।

প্রসঙ্গত মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি পূর্বে নন্দীগ্রাম সভা থেকে জানিয়ে ছিলেন নন্দীগ্রাম তার কাছে ল্যাকি। তারপরই তিনি সেই সভাতেই বলেন যে তিনি নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়ালে কেমন হয়। এমনকি তিনি বলেন ভবানীপুর তার মেজ বোনের মতো। তাই তিনি ম্যানেজ করতে পারলে দুই জায়গা থেকেই দাঁড়াবেন। তবে শেষমেশ আজ প্রার্থী তালিকা প্রকাশে তিনি জানান যে তিনি শুশু নন্দীগ্রামেই দাঁড়াবেন। অর্থাৎ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে লড়াইয়ের একমাত্র স্থান হিসেবে বেছে নিলেন নন্দীগ্রামকেই। অন্যদিকে তৃণমূল ত্যাগী বিজেপি নেতা অর্থাৎ নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করেন যে তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে অর্ধেক ভোটে হারাবেন। তাই এবার নজরে নন্দীগ্রাম। কে জয়ী হবে নন্দীগ্রামে সেদিকেই নজর সবার।

অন্যদিকে নন্দীগ্রামে শুরু হয়েগেছে দেওয়াল-লিখন। শুরু হয়েছে স্থানীয় প্রচার। জানা গেছে, আগামী ১০ই মার্চ মনোনয়ন পেশ করবেন মমতা ব্যানার্জি। উল্লেখ্য গত সপ্তাহেই নির্বাচন কমিশন বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেছেন। আগামী ২৭ মার্চ থেকেই বাংলার শুরু হবে নির্বাচন। আর তার আগে তৃণমূলে অনেকের যোগদান, আবার অনেকের বিদায় কতটা প্রভাব ফেলবে নির্বাচনে তা সময় বলবে। কে হবে বাংলার শাসক? কে হাসবে শেষ হাসি তা শুধুমাত্র নির্বাচনের ফলাফলই বলবে। শেষমেশ কে বাংলার শাসকের স্থান দখল করবে তা দেখার জন্য অপেক্ষায় রাজনৈতিক মহল সহ জনগন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.