নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত! আক্রমণ দেখলেই গুলির নির্দেশ কমিশনের

নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত! আক্রমণ দেখলেই গুলির নির্দেশ কমিশনের
নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত! আক্রমণ দেখলেই গুলির নির্দেশ কমিশনের

ভোটের সময় আত্মরক্ষা করতে গুলি চালাতে পারে কেন্দ্রীয় বাহিনী। সোমবার দ্বিতীয় দফার ভোটের আগেই নজিরবিহীন নির্দেশ দিল নির্বাচন কমিশন। আগের কোনো নির্বাচনে কমিশন এই ধরনের অনুমতি দেয়নি।

প্রথম দফার ভোট থেকেই রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে শুরু হয়ে গিয়েছে হিংসা। প্রার্থীর গাড়ি ভাঙচুর থেকে শুরু করে ভোটারদের প্রভাবিত করা একাধিক অভিযোগ উঠেছে। তাই সব মিলিয়ে পয়লা এপ্রিল দ্বিতীয় দফার ভোটের আগেই আরো কঠোর হলো নির্বাচন কমিশন।

এদিন, নির্দেশ দিয়ে কমিশন জানিয়েছে,কোন সমস্যা হলেই আত্মরক্ষার জন্য গুলি চালাতে পারে কেন্দ্রীয় বাহিনী। সাধারণত নিয়ম অনুসারে গুলি চালাতে হবে বাহিনীকে। অর্থাৎ ভোটে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আধা সেনাবাহিনী যদি আক্রান্ত হন তাহলে নিজেদের বাঁচার তাগিদে তাদের কাছে থাকা রাইফেল থেকে গুলি চালাতে পারবেন তারা।

কমিশনের এই নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন, দ্বিতীয় দফার ভোটে পরিস্থিতি অশান্ত হওয়ার কোনো ইঙ্গিত পেয়েছে কমিশন? এর ফলে ভোটাররা আরো আতঙ্কিত বোধ করবেন না তো?

প্রসঙ্গত পয়লা এপ্রিল দ্বিতীয় দফার ভোট হবে চারটি জেলার তিরিশটি আসনে। এর মধ্যে রয়েছে, হাইভোল্টেজ কেন্দ্র নন্দীগ্রাম। এছাড়াও রয়েছে, গোসাবা, পাথরপ্রতিমা, কাকদ্বীপ, সাগর, তমলুক, পাঁশকুড়া পূর্ব, পাঁশকুড়া পশ্চিম, ময়না, নন্দকুমার, মহিষাদল, হলদিয়া, চণ্ডীপুর, খড়্গপুর সদর, নারায়ণগড়, সবং, পিংলা, ডেবরা, দাসপুর, ঘাটাল, চন্দ্রকোনা, কেশপুর, তালডাংরা, বাঁকুড়া, বড়জোড়া, ওন্দা, বিষ্ণুপুর, কোতলপুর, ইন্দাস, সোনামুখী।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.