যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে আজ নদীয়া জেলায় শুরু হল সর্ববৃহৎ মোটরবাইক মিছিল

যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে আজ নদীয়া জেলায় শুরু হল সর্ববৃহৎ মোটরবাইক মিছিল
যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে আজ নদীয়া জেলায় শুরু হল সর্ববৃহৎ মোটরবাইক মিছিল / নিজস্ব ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ নদিয়াঃ মলয় দেঃ একদিকে নদিয়ার মায়াপুর থেকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার নেতৃত্বে পরিবর্তন যাত্রা! অন্যদিকে সেই নদীয়ারই চাপড়া থেকে সুবিশাল মোটরসাইকেলে তৃণমূলের পক্ষে সমর্থন যাত্রা। কৃষ্ণনগর সাংগঠনিক জেলায় প্রায় ২৫০ কিলোমিটার পথ পরিক্রম করতে চলেছে এক ঐতিহাসিক বাইক মিছিল নিয়ে। উদ্যোক্তা নদীয়া জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেস।

আজ শনিবার সকাল ১১ টার সময় বাইক মিছিলের শুভ সূচনা হয় চাপড়া থানার অন্তর্গত শোনপুকুর সংলগ্ন ময়দান থেকে। প্রায় ১০ হাজার বাইক মিছিলে অংশ নেয়। এই মিছিল শোনপুকুর থেকে শুরু করে চাপড়া, কৃষ্ণনগর, ধূবুলিয়া, বেথুয়াডহরি হয়ে পলাশীতে আজকের মতো শেষ হবে। তারপর পরের দিন অর্থাৎ আগামীকাল রবিবার আবার দেবগ্রাম থেকে শুরু করে পলাশীপাড়া, বেতাই, নাজিরপুর, করিমপুর, থানারপাড়া, তেহটটো হয়ে চাপড়া থানার অন্তর্গত শোনপুকুর সংলগ্ন ময়দানে সমাপ্ত হবে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ২০২১ সালে পুনরায় ক্ষমতায় আসীন করতে সর্বস্তরের দলের কর্মী, নেতৃত্বকে অনুরোধ করার বার্তা নিয়ে এই ঐতিহাসিক বাইক মিছিলে দলীয় ছাত্র যুব মহিলা শ্রমিক কৃষকদের সমস্ত গণসংগঠন এবং শাখা সংগঠন সকলের উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো। এ বিষয়ে যুব সভাপতি জয়ন্ত সাহা জানান, ওরা রথযাত্রার মাধ্যমে, হিন্দু-মুসলিম বৈষম্য সৃষ্টি করছে! ধর্মের ভেদাভেদ আনতে চেষ্টা করছে, এমনকি মতুয়া,আদিবাসীরাও ব্রাত্য। কিন্তু আমরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কর্তৃক প্রদত্ত এই সরকারের বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্পের কথা স্মরণ করিয়ে সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে আজকের এই সমর্থন যাত্রা। যেখানে সমাজের সব স্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ   অফিস কর্মীদের বেতন-সহ কাজের সময় ও পিএফ-এ ব্যাপক পরিবর্তন আনতে চলেছে কেন্দ্রের মোদী সরকার