স্বামীহারা গৃহবধূ পাশেপেলেন মুখ্যমন্ত্রীকে, আবেদনের সাথে সাথে মিলল চাকরি

Image Source: Google

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ বাঁকুড়াঃ স্বামী হারানোর যন্ত্রণা নিয়ে দিন কাটাচ্ছিলেন বাঁকুড়ার বেলিয়াতোড়ের কলেজপাড়া এলাকার টুম্পা মণ্ডল। স্বামী ও দুই সন্তান ও শাশুড়িকে নিয়ে সুখেই সংসার করছিলেন তিনি, কিন্তু স্বামির হঠাৎ মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছিল পরিবারে। টুম্পা মণ্ডলের স্বামী উদয়ভানু মণ্ডল হুগলির বেঙ্গাই কলেজে শারীরশিক্ষার শিক্ষক হিসেবে কাজে যোগ দেন, যোগদেবার ১০ দিন পর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়।

টুম্পা দেবি কীভাবে তার সন্তানদের মানুষ করবেন কিছুই ভেবে পাচ্ছিলেন না। স্বামির মৃত্যুর পর পেনশন পান না টুম্পাদেবী। টুম্পা মণ্ডল জানান জেলায় মুখ্যমন্ত্রী আসায় নিজের সমস্যা জানাতে শাশুড়িকে নিয়ে সার্কিট হাউস গিয়েছিলাম, সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে দেখা না হওয়ায়, তিনি একটি চিঠি লিখে নিরাপত্তাকর্মীদের দিয়ে আসে, এবং সেই চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর হাতে যেতেই, ফোন পেয়েছিলেন টুম্পা মণ্ডল।

ওই রাতেই বাঁকুড়ার জেলাশাসক উমাশঙ্কর এস টুম্পাদেবীর বাড়িতে গিয়ে তাঁর হাতে নিয়োগ পত্র তুলে দেন এবং জানান স্বয়ং মুখ্য মন্ত্রীর নির্দেশে মহিলাকে চাকরির নিয়োগ পত্র দিয়েছেন। বড়জোড়া ব্লক দফতরে বিডিও ভাস্কর রায়ের কাছে চুক্তিভিত্তিক পদে যোগ দিয়েছেন টুম্পাদেবী। প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী নিজেই ওই গৃহবধূ প্রসঙ্গ তোলেন, তবে মুখ্যমন্ত্রীর এই পদক্ষেপে খুশি রাজনৈতিক মহলে।

আরও পড়ুনঃ  এগরার কুদি থেকে পূর্ণবয়স্ক বাঘরোল উদ্ধার বনদফতরের

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.