৯০ হাজার টাকা দিয়ে ভুয়ো স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করে পুলিশের জালে যুবক

৯০ হাজার টাকা দিয়ে ভুয়ো স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করে পুলিশের জালে যুবক
৯০ হাজার টাকা দিয়ে ভুয়ো স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করে পুলিশের জালে যুবক

ইন্ডিয়ান পাসপোর্ট তৈরি করতে গিয়ে পুলিশ ভেরিভিকেশনে ধরা পড়ল এক বাংলাদেশি যুবক। গোবিন্দ সাহা নামে ওই যুবককে রবিবার সকালে গ্রেফতার করলো রাজারহাট থানার পুলিশ।আজ তাকে বারাসাত কোর্টে তোলা হবে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ৯০ হাজার টাকা খরচ করে জাল স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করে সে।এরপর সেই সার্টিফিকেট দিয়ে আধার, ভোটার ও প্যান কার্ড তৈরি করে।শেষে পাসপোর্ট তৈরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে যুবক।২০১২ সাল থেকে প্রথমে বাগুইআটি এলাকায় বসবাস করতে শুরু করে সে। পরে রাজারহাট থানা এলাকায় থাকতে শুরু করে। এরই মধ্যেই সে তৈরি করে নেয় একাধিক নথি। শেষ পর্যন্ত ইন্ডিয়ান পাসপোর্ট তৈরি করতে গিয়ে পুলিশ ভেরিভিকেশনে ধরা পড়ে।

৯০ হাজার টাকা দিয়ে ভুয়ো স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করে পুলিশের জালে যুবক

পুলিশ সূত্রে খবর, বাংলাদেশের চাঁদপুর এলাকার বাসিন্দা ২৬ বছরের গোবিন্দ সাহা ২০১২ সালে ভারতে প্রবেশ করে। জেরার মুখে পড়াশোনা করার কারণ দেখিয়েই এদেশে এসেছে বলে দাবি করে সে। এর পরই একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি হবে বলে ৯০ হাজার টাকা খরচ করে কলকাতার এক ব্যক্তিকে জাল স্কুল সার্টিফিকেট তৈরি করতে দেয়।সেই স্কুল সার্টিফিকেট নিয়ে কলেজে ভর্তিও হয়।

শুধু তাই নয় পুলিশ সূত্রে আরও খবর, ওই জাল সার্টিফিকেট দিয়ে ভোটার কার্ড, আধারকার্ড প্যানকার্ড সবই তৈরি করে ওই যুবক।এরপর যখন ওই যুবক ইন্ডিয়ান পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করে তখন সেই তথ্য যাচাইয়ের জন্য পুলিশ ভেরিফিকেশনে পাঠায়।সেই তথ্য যাচাইয়ের সময় এসবি অফিসারদের সন্দেহ হয় এবং তারা জানতে পারে ওই তথ্য সম্পূর্ণ ভুয়ো।এর পর রাজারহাট থানায় খবর দেওয়া হলে রাজারহাট থানার পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে রায়গাছির একটি আবাসন থেকে গ্রেফতার করে।আজ তাকে বারাসাত কোর্টে তোলা হবে।নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানাবে তদন্তকারী দল।এই জাল সার্টিফিকেট কার কাছ থেকে তৈরি করলো সেই বিষয়ে খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছে রাজারহাট থানার পুলিশ।