নির্বাচনে জিতেও আজ শপথ নিলেন না বিজেপির এই দুই প্রার্থী!

নির্বাচনে জিতেও আজ শপথ নিলেন না বিজেপির এই দুই প্রার্থী!
নির্বাচনে জিতেও আজ শপথ নিলেন না বিজেপির এই দুই প্রার্থী! / প্রতীকী ছবি

একুশের নির্বাচনে কোনও মতে তীরে এসে পৌঁছেছে বিজেপি। শুক্রবার ছিল সেই নবনির্বাচিত বিধায়কদের কয়েক জনের শপথ বাক্য পাঠ। তবে দেখা গেল বিধানসভা অধিবেশন কক্ষে পৌঁছলেও শপথ বাক্য পাঠ করলেন না বিজেপির দুই সাংসদ জগন্নাথ সরকার ও নিশীথ প্রামাণিক। ফলে জল্পনা দেখা দিয়েছে।

গতকাল ও এদিন ছিল রাজ্য বিধানসভা ভবনে নবনির্বাচিত ২৯১জন বিধায়কের শপথ গ্রহণের দিন। কিন্তু সেই শপথ গ্রহণের নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে গেলেও দেখা গেল ২জন বিধায়ক শপথে নেননি। এদের মধ্যে একজন রানাঘাটের সাংসদ জগন্নাথ সরকার ও অপরজন কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক।

প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হতে দেখা গিয়েছিল বেশ কিছু সংসদকে বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী করেছে বিজেপি। এর মধ্যে ছিলেন জগন্নাথ সরকার ও নিশীথ প্রামাণিক। এই দুই প্রার্থীকে নিয়ে দলের অন্দরে কোনও সমস্যাও ছিল না। এমনকি ফল প্রকাশ হতে দেখা গেছে দুজনের ভালো ভোট পেয়েছেন। এর পরেই প্রশ্ন উঠছে তাহলে সমস্যা কোথায়? কেনই বা দুজন জয়ী হয়েও শপথ নিলেন না।

বিষয়টি স্পষ্ট করে বললে দাঁড়ায়, নিশীথ বাবু এবং জগন্নাথ বাবু দুজনেই সাংসদ। এবার বিধায়ক হিসেবে শপথ নিতে গেলে আগামী ৬ মাস পর সাংসদ বা বিধায়ক পদের মধ্যে যে কোনও একটি থেকে তাঁদের পদত্যাগ করতে হবে। তাঁদের ছেড়ে দেওয়া আসনে আবারও নির্বাচন হবে, যা উপনির্বাচন হিসাবেই চিহ্নিত হবে। এখন কেউই সাংসদ পদ ছাড়তে নারাজ। কার্যত তাঁরা বিধানসভা নির্বাচনেও লড়তে চাননি। দল থেকেই তাঁদের জোর করে ভোটে প্রার্থী করা হয়েছিল।

এদিকে সাংসদ পদ না ছাড়ার অন্যতম কারণ বেশি ক্ষমতা ভোগ করার পাশাপাশি বেতনও অনান্য সুযোগ-সুবিধাও বেশি পাওয়া যায়। একইসঙ্গে জেলার রাজনীতিতে ক্ষমতা কায়েম রাখা যায় যা বিধায়ক হয়ে গেলে আর ধরে রাখতে পারবেন না নিশীথবাবু ও জগন্নাথবাবু। তাই তাঁরা পদ ছাড়তে নারাজ। কিন্তু বিধানসভায় নিজেদের আসন বাড়াতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব চায় এই দুজন সাংসদ পদ ত্যাগ করে বিধায়ক হয়েই থাকুন।