অলৌকিক ভাবেই তৈরি হল এই ‘লকডাউন বাবা’

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ নদীয়াঃ লকডাউনে শান্তিপুর শহরের ডাবরে পাড়ার শিল্পী জয় প্রামানিক কালীপুজো রাস উপলক্ষে একটি মডেল বানিয়ে কিছুটা কাজ কমিয়ে রাখতে উদ্যত হন গৃহবন্দি অবস্থায়। খানিকটা অলৌকিক ভাবেই, সিমেন্টের মূর্তি শিল্পীর শিল্প বিপন্নতায় আপন খেয়ালে হয়ে যায় অসাধারণ দেবাদিদেব মহাদেবের মূর্তি।

সেই থেকে বিশ্বাসে আবেগে ভালোবাসায় শিব রূপে প্রাণপায় সিমেন্টের মূর্তিটি। এই কদিনে “করোনা” গৃহবন্দী মানুষ কে শিখিয়েছে অনেক কিছু। ধনী-দরিদ্র, উঁচু-নিচু করোনার থাবা থেকে বাদ যাবে না কেউ, তাহলে এত হানাহানি মারামারি কিসের জন্য? চেতনার উন্মেষ ঘটে সমভাবাপন্ন মানসিকতা তৈরি হলো সকলের। বারোয়ারি একপ্রান্তে তৈরি হোক মন্দির যেখানে নিজেদের দুঃখ-দুর্দশার কথা ব্যক্ত করা যাবে সকলে সমবেত হয়ে।

আশ্চর্য ব্যাপার ইট বালি সিমেন্ট থেকে শুরু করে দরজা-জানলা এমনকি কাপড়ের পর্দা পর্যন্ত কাউকে দায়িত্ব দেয়া হয়নি! অথচ অদ্ভুতভাবে পাড়া, পাশের পাড়া, এমনকি পাড়ায় বছরে দুই একবার বেড়াতে আসা মানুষটিও তার সাধ্যমত সহযোগিতার ইচ্ছা প্রকাশ করে গেছেন। যেহেতু লকডাউনে মস্তিষ্কপ্রসূত মন্দির বা দেবতার সৃষ্টি তাই নব প্রজন্মের ছেলেমেয়েরা নাম দিয়েছে “লকডাউন বাবা”। এলাকার ভক্তবৃন্দ ভক্তিভরে পূজা দিয়েছেন করোনা মোকাবিলায় মহাপ্রলয় রক্ষাকর্তারুপে নটরাজকে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.