এবার ছেলের হয়ে প্রচারে দেখা যাবে শিশির অধিকারীকে

এবার ছেলের হয়ে প্রচারে দেখা যাবে শিশির অধিকারীকে
এবার ছেলের হয়ে প্রচারে দেখা যাবে শিশির অধিকারীকে

এবার ছেলের হয়ে প্রচারে নামছে দেখা যেতে পারে শিশির অধিকারী কে। যা নিঃসন্দেহে রাজ্য রাজনীতিতে সাড়া জাগানো একটি বিষয়। সূত্রের খবর আগামীকাল বুধবার থেকে সক্রিয়ভাবে ছেলের হয়ে প্রচার শুরু করবেন তিনি।

এখনো খাতায়-কলমে তৃণমূল সাংসদ শিশির অধিকারী। ছেলে শুভেন্দু অধিকারী দল ত্যাগ করার পরেই একাধিকবার দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিশিরবাবু। বারবার জল্পনা ছড়িয়েছে আগামী ২৪ মার্চ কাঁথিতে প্রধানমন্ত্রীর সভায় তাকে উপস্থিত থাকতে দেখা যাবে কিনা তা নিয়ে। কিছুদিন আগে তার বাড়িতে লকেট চট্টোপাধ্যায় এর উপস্থিতি সেই জল্পনায় খানিকটা ঘি ঢেলেছে।

এবার সেই জল্পনায় মঙ্গলবার নিজেই সীলমোহর দিলেন বর্ষিয়ান নেতা। জানালেন সুযোগ হলে প্রধানমন্ত্রী সভায় হাজির থাকবেন তিনি। এর পরেই তাকে তার রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মেজাজ হারান শিশির অধিকারী। বলেন, “নিজের রাজনৈতিক অবস্থান আমি জানিনা তবে ছেলে প্রচারে ডাকলে আমি যাব”।

এদিকে দল ত্যাগ করার পরেই শুভেন্দু অধিকারী কে মীরজাফর বলে পোস্টার পড়েছে একাধিক জায়গায়। এই প্রসঙ্গে শিশিরবাবুর মন্তব্য, “কে বলেছে আমি তৃণমূলে আছি?যেদিন শুভেন্দু ছেড়ে গিয়েছে দল তার দুদিন পর থেকেই আমার বাপ ঠাকুরদার নাম তুলে গালাগালি দিচ্ছে। বলছে আমরা মীরজাফর। কার কি খেয়েছি, কি করেছি জানিনা। মেদিনীপুরের লোক জানে আমরা ভোগী কি ত্যাগী”।

প্রসঙ্গত শুভেন্দু অধিকারী এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী হয়েছেন। মঙ্গলবারেও নন্দীগ্রামে প্রচারে গিয়েছেন শুভেন্দু। রীতিমতো কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী কে।

তবে শুভেন্দু বাবার থেকেও এ দিন একধাপ এগিয়ে ছিল শিশির অধিকারীর সুর। নন্দীগ্রামে তৃণমূল নেত্রীর আহত হওয়া নিয়ে রীতিমতো কটাক্ষ করেছেন তিনি। জানিয়েছেন, “যা কীর্তি করছেন সেটা খুব লজ্জার ব্যাপার। জেলার পক্ষে লজ্জা। নন্দী গ্রামের পক্ষেও লজ্জা। দুদিন আগে উনি বলেছিলেন চারজন ধাক্কা দিয়েছে, আর এখন যখন প্রতিবাদ হলো তখন বলছেন দরজায় ধাক্কা লেগেছে আমরা ঘরে বসে সিনেমা দেখছি”।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.