প্রধানমন্ত্রীর ডাকে দেশ জুড়ে শুরু হল টিকা উৎসব

প্রধানমন্ত্রীর ডাকে দেশ জুড়ে শুরু হল টিকা উৎসব
প্রধানমন্ত্রীর ডাকে দেশ জুড়ে শুরু হল টিকা উৎসব/ Representative Image

দেশে করোনা সংক্রমণ কমাতে জোর দিতে হবে টিকাকরনে। সে কারণেই ১১এপ্রিল রবিবার অর্থাৎ আজ থেকে শুরু হচ্ছে টিকা উৎসব। চলবে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত।

দেশ তথা রাজ্যে করোনা গ্রাফ ক্রমেই ঊর্ধ্বমুখী হয়ে চলেছে। এ পরিস্থিতিতে একমাত্র উপায় টিকাকরণ। যত বেশি সম্ভব টিকাকরণ করতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই মতই রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে তিনি বলেছিলেন, ১১ এপ্রিল জ্যোতিবা ফুলে এবং ১৪ এপ্রিল বাবা সাহেবের জন্মদিন। তাই ১১ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশ জুড়ে চলবে টিকাকরণ উৎসব।

সেই মতই আজ থেকে দেশজুড়ে শুরু হলো টিকাকরণ উৎসব। প্রধানমন্ত্রী জানান, এই কদিন নজর রাখতে হবে যাতে যারা ভ্যাকসিন নেওয়ার যোগ্য তাদের সকলকে যেন টিকা দেওয়া হয়। ভ্যাকসিনের কোনও ডোজ যেন নষ্ট না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি ভ্যাকসিন দেওয়া নিয়ে ক্যাম্পেইন চালাতে হবে বলেও জানান নমো।

এদিকে দেশে তৈরি হয়েছে ভ্যাকসিনের অভাব। যা নিয়ে সরব হয়েছে বিরোধীরা। করোনা সংক্রমণে জেরে নাকাল গোটা দেশ। মহারাষ্ট্র, দিল্লির পাশাপাশি সংক্রমণ বাড়ছে বাংলাতেও। ফলে ইতিমধ্যেই টিকাকরণ বন্ধ হয়েছে গোটা মহারাষ্ট্রে। এর রেশ এবার এসে পৌঁছাল পশ্চিমবঙ্গেও। মহানগরে করোনা টিকাকরণ বন্ধের মুখে। ফলে আতঙ্কের শিকার সাধারণ মানুষ।

সূত্রের খবর, কলকাতার বেশ কিছু বেসরকারি কেন্দ্র থেকে মিলছে না করোনা টিকা। শনিবার সকাল থেকে বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে ভোগান্তির শিকার হন মহানগরবাসী। কোউইন-২ পোর্টাল খোলা থাকায় সেখান থেকে রেজিস্ট্রেশন করে হাসপাতালে গেলে মিলছে না টিকা। ফলে নাকাল হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। করোনা দ্রুত বাড়ছে। এই অবস্থায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে প্রতিষেধক আরও বেশি মাত্রায় দেওয়ার সুপারিশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু কলকাতা পুরসভার বিভিন্ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে শুক্রবার থেকেই করোনার ইঞ্জেকশন দেওয়া হচ্ছে না।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.