'বিজেপি হারছে বলেই গুলি চালাচ্ছে'- মাথাভাঙ্গা কাণ্ডে অমিত শাহকে দুষলেন মমতা!
'বিজেপি হারছে বলেই গুলি চালাচ্ছে'- মাথাভাঙ্গা কাণ্ডে অমিত শাহকে দুষলেন মমতা!

ভোটের সকালেই কোচবিহারের মাথাভাঙ্গায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। আহতের সংখ্যা ৫। সেই ঘটনা প্রসঙ্গেই এবার সরাসরি অমিত শাহকে দুষলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপির দিকে আঙুল তুলে মমতা অভিযোগ এনেছেন, “বিজেপি হারছে বলে গুলি করে মারছে। কিন্তু সকলে শান্ত থাকুন। কেউ অশান্তিতে জড়াবেন না।” পাশাপাশি তিনি এও প্রশ্ন তুলেছেন, “কী অন্যায় করেছিল এই চারজন? আমজনতার উপর অত্যাচারের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কেন নির্দেশ দিচ্ছে অমিত শাহ?”

উত্তর ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ ও বাদুড়িয়ার সভা থেকে এদিন মমতা বলেন, “আমি বারবার বলছি সিআরপিএফ (CRPF) আমার শত্রু নয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথায় চলছে ওরা। হোম মিনিস্টার অমিত শাহ চক্রান্ত করছেন। সিআরপিএফকে বিজেপির হয়ে কাজ করতে হচ্ছে। বিজেপি জেনে গিয়েছে ওরা হারবে। তাই নানারকম অশান্তি ছড়াচ্ছে। আমাদের কর্মীদের গুলি করে মারছে। সাধারণ মানুষকে মারছে।” পাশাপাশি তিনি এও বলেন, “গুলির বদলা নিতে হবে ভোট দিয়ে। একটা করে ভোট, একটা করে বদলা।”

নির্বাচন কমিশনকেও ঠুকতে ছাড়েননি তৃণমূল সুপ্রিমো। হিজলগঞ্জের সভা থেকেই এদিন তিনি বলেন, “রিটায়ার্ড লোক আমার নিরাপত্তারক্ষী হলে অসুবিধা, আর রিটায়ার্ড লোককে দিয়ে নির্বাচন কমিশন চালাচ্ছে। আজকে আমার হাতে নেই আইনশৃঙ্খলা। তৃণমূল নেতা, পাবলিককে খুন করা হচ্ছে। আমার সঙ্গে যদি রিটায়ার্ড লোক না থাকতে পারে, তাহলে নির্বাচন কমিশন কী করে রিটায়ার্ড লোককে দিয়ে ভোট করাচ্ছে। আমি নির্বাচন কমিশনকে চ্যালেঞ্জ করছি। আমাকে নোটিশ পাঠালে পাঠান।”

প্রসঙ্গত, এর আগেও তৃণমূল নেত্রী অভিযোগ এনেছিলেন সিআরপিএফ সাধারণ মানুষকে বাধা দিচ্ছে, ভয় দেখাচ্ছে৷ এমনকী বিজেপিকে ভোট দিতেও জোর করছে। এরপর মহিলাদের উদ্দেশে তিনি নির্দেশ দেন, “কেন্দ্রীয় বাহিনী ভয় দেখালে মা-বোনেরা তাঁদের ঘেরাও করুন।” অন্যদিকে, মাথাভাঙ্গা ঘটনায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর দায় স্বীকার করে নিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ তারা জানিয়েছে গুলি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীই। এই নিয়ে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্টও তলব করছে কমিশন। যদিও বাহিনী সূত্রে দাবী করা হয়েছে, আত্মরক্ষার্থেই গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.