‘কোনও বিধিনিষেধ ভাঙিনি’- কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগে কমিশনের পাঠানো নোটিশ প্রসঙ্গে মমতার জবাব!

'কোনও বিধিনিষেধ ভাঙিনি'- কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগে কমিশনের পাঠানো নোটিশ প্রসঙ্গে মমতার জবাব!
'কোনও বিধিনিষেধ ভাঙিনি'- কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগে কমিশনের পাঠানো নোটিশ প্রসঙ্গে মমতার জবাব!

“রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা অশান্তি করছেন। বহু গ্রামে ঢুকে মহিলাদের ভোট দিতে বাধা দিচ্ছেন। এমন পরিস্থিতি তৈরি হলেই কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করুন”- কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘিরে এমন মন্তব্যের জন্য ইতিমধ্যেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শো কজ করেছিল নির্বাচন কমিশন। অবশেষে সেই শো কজের উত্তর দিলেন মমতা। চিঠি লিখে কমিশনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তৃণমূল নেত্রী।

মমতা জানালেন, তারকেশ্বর বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত রামনগর এলাকায় এক বাচ্চা মেয়েকে শ্লীলতাহানি করে কেন্দ্রীয় বাহিনীর এক জওয়ান। তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে চিঠি পাঠিয়েছিল তৃণমূল। নির্বাচন কমিশনের শো কজের উত্তরে, সে প্রসঙ্গ তুলে কমিশনের পদক্ষেপের সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন মমতা৷ পাশাপাশি অন্যান্য অভিযোগ নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, তৃণমূল নেত্রী অভিযোগ এনেছিলেন সিআরপিএফ সাধারণ মানুষকে বাধা দিচ্ছে, ভয় দেখাচ্ছে৷ এমনকী বিজেপিকে ভোট দিতেও জোর করছে। এরপর মহিলাদের উদ্দেশে তিনি নির্দেশ দেন, “কেন্দ্রীয় বাহিনী ভয় দেখালে মা-বোনেরা তাঁদের ঘেরাও করুন। আরেক দল ভোট দিতে যান। কারা এই কাজ করছে, তাদের নাম লিখে রাখুন।” এই মন্তব্যের পরই কমিশন থেকে শো কজের নোটিশ ধরানো হয় তৃণমূল সুপ্রিমোকে। তার উত্তরে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন মমতা। এও জানান, তিনি এমন কিছুই বলেননি যা মডেল কোড অফ কন্ডাক্ট-এর বিরোধিতা করে।

'কোনও বিধিনিষেধ ভাঙিনি'- কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগে কমিশনের পাঠানো নোটিশ প্রসঙ্গে মমতার জবাব!
‘কোনও বিধিনিষেধ ভাঙিনি’- কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগে কমিশনের পাঠানো নোটিশ প্রসঙ্গে মমতার জবাব!

চিঠিতে তিনি লিখেছেন, সেন্ট্রাল আর্মড পুলিশ ফোর্স (সিএপিএফ)-এর প্রতি আমার শ্রদ্ধা রয়েছে। দেশের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে তাঁদের অবদান অনস্বীকার্য। আমার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করছি। তবে তারকেশ্বের রামনগরে এক সিআরপিএফ জওয়ান একটি বাচ্চা মেয়ের শ্লীলতাহানি করেছিল বলে অভিযোগ। যার বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগও জানানো হয়েছিল। কিন্তু সেই ঘটনা নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি।

পাশাপাশি তিনি এও লেখেন, তিনি শুধুমাত্র মহিলাদেরই বলেছেন গণতান্ত্রিক উপায়ে প্রতিবাদ করতে। যদি তাঁদের ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনও সিএপিএফ জওয়ান ভয় দেখান, তবে তাঁদের ঘেরাও করার পরামর্শ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী। এতে তিনি কোনও বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করেননি বলেও জানিয়েছেন তিনি। সেই সঙ্গে, প্রথম তিন দফা ভোটের সময় জওয়ানদের বিরুদ্ধে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগের কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে কমিশনকে পালটা প্রশ্ন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।