হুকিং করে কুকুরের ঘরে চলছে এসি, ৮ লক্ষ টাকা জরিমানা তৃণমূল নেত্রীর

Image courtesy: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ বাড়ির একাধিক ঘরেই এসি। পাশাপাশি ফিজ, ওয়াশিং মেশিনের মতো রয়েছে একাধিক বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম। কিন্তু তাঁর জন্য মেটাতে হচ্ছেনা উপযুক্ত বৈদ্যুতিক বিল। কিন্তু এত কিছু বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ব্যবহার করার পরেও কীভাবে এক কম রিডিং আসতে পারে! তা নিয়ে সন্দেহ হয় বিদ্যুৎকর্মীর। এরপরেই তল্লাশি করে দেখা যায় বাড়ির সমস্ত বৈদ্যূতিক সরঞ্জামই চলত হুকিংয়ের বিদ্যূতে।

ঘটনাটি গাইঘাটা থানার বাবুপাড়া এলাকার। তৃনমূউল নেত্রী ও পঞ্চায়েত সহ-সভাপতি ইলা বাগচীর বাড়িতে বিদ্যুৎ খরচের হিসাব দেখে রীতিমতো সন্দেহ হয় বিদ্যুৎ কর্মীর। এরপরেই তিনি ঠাকুরনগর বিদ্যুৎ দপ্তরে বিষয়টি জানান। পুরো বিষয়টি খতয়ে দেখতে গিয়েই জানা যায় হুকিংয়ের বিষয়টি। স্থানীয়দের কথায়, শাসক দলের একজন দাপুটে নেত্রী ইলাদেবী। তাই তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করার সাহস পায়নি কেউ।

গাইঘাট পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি ইলা বাগচীর স্বামী পিনাকীরঞ্জন বাগচী পেশায় ছিলেন রেলের স্টেশন মাস্টার। বর্তমানে তিনি অবসরপ্রাপ্ত। জানান গিয়েছে গত ৮ থেকে ৯ বছর ধরে হুকিং করেই বড়িতে বিদ্যুৎ ব্যবহার করতেন তাঁরা। এমনকি বাড়ির পোষা কুকুরেরও যাতে কোন অসুবিধা না হয় সে কারনে তাঁর জন্যও নেওয়া হয়েছিল একটি আলাদা এসি। এরপরেই বিষয়টি নিয়ে বিদ্যুৎ ভবনে লিখিত অভিযোগ জানান স্থানীয়রা। এর পরেই বিদ্যুৎকর্মীরা বেশ কয়েকদিন তৃণমূল নেত্রীর বাড়ি পর্যবেক্ষন করার পর অবশেষে বাড়িতে হানা দেন। তখনি ধরা পরে মূল বিষয়। এই অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার করায় গত ১৭ সেপ্টেম্বর ঠাকুরনগর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্টেশন ম্যানেজার প্রদীপ নাগ পঞ্চায়েত সহ-সভাপতি ইলা বাগচী ও তাঁর স্বামী পিনাকীরঙ্গন বাগচীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এর পরেই বিধাননগর বিদ্যুৎ ভবনে ৮,১৩,৮৩১ টাকা জরিমানা দিয়ে তাঁর রসিদ দেখিয়ে বনগাঁ আদালতে জরিমানার আবেদন করেন পিনাকীরঞ্জন বাগচী। এর ফলে আগামী ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত তাঁর জামিন মঞ্জুর করা হয়।

আরও পড়ুনঃ  পাকিস্তানের বিমান দুর্ঘটনায় শোকপ্রকাশ করে ট্যুইট ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.