মিঠুনের বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কটাক্ষ তৃনমূল নেতাদের

মিঠুনের বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কটাক্ষ তৃনমূল নেতাদের
মিঠুনের বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কটাক্ষ তৃনমূল নেতাদের

একুশের নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই উত্তেজনা চরমে। এরই মাঝে জল্পনার অবসান ঘটিয়ে রবিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভায় গিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন অভিনেত্রী মিঠুন চক্রবর্তী। আর এরপরেই মিঠুনের বিজেপিতে যোগ নিয়ে কটাক্ষ করলেন তৃনমূল সাংসদ সৌগত রায় এবং তৃনমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। মিঠুন বিজেপিতে যোগ দিতে ‘মিঠুন আবার পালটি খাবে ও বিশ্বাসঘাতক’ কটাক্ষ করেন সৌগত বাবু।

এদিন সব জল্পনার অবসার ঘটিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী । রবিবার পদ্ম-উত্তরীয় পরিয়ে মিঠুনকে দলে বরণ করে নিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়। মিঠুনকে ঘিরে উচ্ছাস দেখা গেল সমর্থকদের মধ্যে।

এই প্রসঙ্গে সৌগত রায় আরও বলেন,’আরেক বার দল পাল্টাল মিঠুন৷ ও আগে সিপিএম ছিল৷ ২০১৪ সালে তৃণমূলের হয়ে ভোটে জেতার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওঁকে রাজ্যসভায় পাঠালেন৷ সেই মিঠুন আবার বিজেপি-তে৷ ইডি-কে দিয়ে যেই মিঠুনকে ভয় দেখিয়েছে কেন্দ্র সরকার, উনি রোজভ্যালি থেকে যা টাকা নিয়েছিলেন, সব ফেরত দিয়ে সাধু হয়ে গেলন। অনেকদিন পর আবার মিঠুন আত্মপ্রকাশ করলেন৷ সেই মিঠুনকে ভরসা করা যায় না৷ ও আবার পালটি খাবে ও বিশ্বাসঘাতক’।

এই প্রসঙ্গে কুনাল ঘোষ বলেন,’মিঠুন চক্রবর্তী অত্যন্ত পছন্দের মানুষ। বড় মাপের অভিনেতারা সবসময় বড় হাউস খোঁজেন। এই বিষয়টাও ঠিক তেমনই’। অন্যদিকে মিঠুন চক্রবর্তী প্রসঙ্গে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘উনি নকশাল ছিলেন, মিঠুনদাকে একটা সময়ে সুভাষবাবুরও সঙ্গে দেখেছি। পরে তৃণমূলে এসেছিলেন। ওঁর অনেক রূপ। আরও অনেক রূপ দেখব’।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.