‘‌আমাদের কাছে অনেকেই অ্যাপ্লিকেশন দিয়েছেন’‌! বিজেপিতে ফের ভাঙনের ইঙ্গিত ফিরহাদ হাকিমের

‘‌আমাদের কাছে অনেকেই অ্যাপ্লিকেশন দিয়েছেন’‌! বিজেপিতে ফের ভাঙনের ইঙ্গিত ফিরহাদ হাকিমের
‘‌আমাদের কাছে অনেকেই অ্যাপ্লিকেশন দিয়েছেন’‌! বিজেপিতে ফের ভাঙনের ইঙ্গিত ফিরহাদ হাকিমের

বিজেপি ফের বড়সড় ভাঙনের ইঙ্গিত দিলেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। আজ তিনি দাবী করলেন, বিজেপির অনেক নেতাই তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্য আবেদন জমা দিয়ে রেখেছেন। তাঁদের কাকে কাকে দলে নেওয়া হবে, কবে নেওয়া হবে সেসব ঠিক করবেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবার ফিরহাদ হাকিম জানান, “বিজেপির অনেক নেতাই তৃণমূলে যোগ দিতে চান। আমাদের কাছে অনেকেই অ্যাপ্লিকেশন জমা দিয়েছেন। অভিষেকের কাছে ওগুলো পাঠিয়ে দিয়েছি। অভিষেকই ঠিক করবে, কাদের কবে দলে নেওয়া হবে।” তবে কি বিজেপিতে ফের ভাঙন? ফিরহাদের কথা অনুযায়ী, যাঁরা এবার তৃণমূলে আসতে চান, তাঁরা প্রত্যেকেই বিজেপি নেতা, বিধায়ক বা সাংসদ। তৃণমূল কংগ্রেসে তাঁরা আগে ছিলেন না। সূত্রের খবর, ফিরহাদের এই বক্তব্যে বেশ চিন্তিত গেরুয়া শিবির। জানা গিয়েছে, রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বেশ কয়েকজনকে ফোন করেছেন। যদিও প্রকাশ্যে সে কথা স্বীকার করতে চাইছেন না বিজেপির কেউই।

যদিও বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যাওয়ার প্রসঙ্গে দলের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সাফাই দিয়েছিলেন, “ভোটের আগে যে লক্ষ লক্ষ মানুষ তৃণমূল ছেড়ে এসেছিল, তাঁদের অনেকেই এখন সুবিধা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে। এদের মধ্যে কিছু নেতাও আছে। কাউকে আবার নানারকম কেস দিয়ে ভয় দেখানো হচ্ছে। অনেককে কোনওরকম সরকারি সুবিধা দেওয়া হচ্ছে না।” অন্যদিকে, বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের কথায়, তৃণমূলে নিজেদের গুরুত্ব বাড়াতে এখন অনেকেই অনেক কিছু বলছেন। ভোটের আগে অনেক তৃণমূল নেতাই বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। তাই দলবদল নিয়ে বিজেপি চিন্তিত নয়।

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই গেরুয়া শিবির ছেড়ে ঘাসফুলে নাম লিখিয়েছেন মুকুল রায়, বাবুল সুপ্রিয়, সব্যসাচী দত্ত সহ বিজেপির বহু নেতা এবং বিধায়ক। এবার আরও কয়েকজন শাসকদলের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন বলে শাসক শিবিরের দাবি। ফলে বিজেপির আশঙ্কা বাড়ছে। এরপর সামনেই রাজ্যের চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন। তার আগে ফিরহাদের এহেন মন্তব্য গেরুয়া শিবিরের চাপ বাড়াবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।