‘খরা হোক বা বন্যা বাংলার একমাত্র ভরসা অগ্নিকন্যা’, পুরুলিয়া থেকে বললেন অভিষেক

'খরা হোক বা বন্যা বাংলার একমাত্র ভরসা অগ্নিকন্যা', পুরুলিয়া থেকে বললেন অভিষেক
'খরা হোক বা বন্যা বাংলার একমাত্র ভরসা অগ্নিকন্যা', পুরুলিয়া থেকে বললেন অভিষেক / ছবি সৌজন্যে- Screengrab from Facebook Video Posted By @AbhishekBanerjeeOfficial

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ জোরকদমে চলছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নির্বাচনী প্রচার, জনসভা। লক্ষ্য বাংলার শাসন ক্ষমতা দখল করা। গতকালই পুরুলিয়াতে জোড়া সভা করে গেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ ওই জেলাতেই বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে জনসভা করছেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। রঘুনাথপুর, মানবাজার ও পুরুলিয়া- পরপর এই তিনটি বিধানসভায় দলীয় প্রার্থীদের হয়ে নির্বাচনী প্রচার করছেন তিনি।

উল্লেখ্য, আহত হওয়ার পরে, গতকালই প্রথম জেলা সফরে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পুরুলিয়াতে দুটি সভা করেন তিনি। হুইলচেয়ারে বসেই ভাষণ দেন। গত বিধানসভা নির্বাচনে এই পুরুলিয়াতেই ভালো ফল করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। জেলার ৯টি বিধানসভার মধ্যে ৭টিই তারা দখল করে। ২টি আসন পায় কংগ্রেস। শূন্য হাতে ফিরতে হয় বিজেপিকে।

আজ এই পুরুলিয়াতে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বলেন যে, ‘উন্নয়নের নিরিখে BJP-কে হারাব, ৯-০ করতে হবে পুরুলিয়া। যদি হারাতে না পারি, তাহলে রাজনীতির আঙিনায় পা রাখব না।’ তিনি বিজেপিকে নিশানা করে আরও বলেন যে, ‘একটা সরকার কী কাজ করেছে, তার রিপোর্ট কার্ড থাকা দরকার। তথ্য-পরিসংখ্যান সামনে রেখে লড়াই করা হোক। ১০ বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী করেছেন, আর ৭ বছরে নরেন্দ্র মোদী কী করেছেন?’

বিজেপিকে আক্রমণ করে অভিষেক আরও বলেন যে, ‘ভাঙা পা নিয়েই লড়াইয়ে নেমেছেন তৃণমূল নেত্রী। ভাঙা পা নিয়েই যুদ্ধ হবে। আমরাই জয় ছিনিয়ে আনব।’ তিনি বলেন যে, মুখ্যমন্ত্রী যে যে কথা দিয়েছিলেন, সেইসব কথা রেখেছেন। রুপশ্রী দিয়েছেন, কন্যাশ্রী দিয়েছেন, গতিধারা দিয়েছেন, বিনা পয়সায় স্বাস্থ্যসাথী, খাদ্যসাথী দিয়েছেন। তাই খরা হোক বা বন্যা বাংলার একমাত্র ভরসা অগ্নিকন্যা।

আজ পুরুলিয়ায় জনসভা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন যে, আজ একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রীকে হারাতে কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বদের ডেইলি প্যাসেঞ্জারি করতে হচ্ছে। বিজেপিকে কটাক্ষ করে বলেন, যারা ‘সোনার বাংলা’ গড়ার কথা বলছেন, তাঁরা সোনার বাংলা কথাটাই উচ্চারণ করতে পারছেন না, তাঁরা নাকি সোনার বাংলা গড়বে! তিনি প্রশ্ন তোলেন, তাহলে এতদিনে সোনার গুজরাত, সোনার উত্তরপ্রদেশ, সোনার মধ্যপ্রদেশ হয়নি কেন?

তৃণমূল নেতা তথা সাংসদ বলেন, ‘বিজেপি পুরুলিয়ায় এমন একটা ভাব করছে যেন, গোটা পুরুলিয়া গেরুয়া হয়ে গিয়েছে। আমরাও গেরুয়ায় বিশ্বাস করি। আমরা স্বামীজির গেরুয়ায় বিশ্বাস করি। যোগী আদিত্যানাথেরা গেরুয়ায় নয়।’

অন্যদিকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে নিশানা করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘দিলীপবাবু বাংলায় জয় শ্রীরাম বলে স্লোগান তুলেছিলেন। তিনি বলছেন মা দুর্গার পূর্বপুরুষদের কেউ চেনে না। এর জবাব দেবেন না আপনারা? আপনারা দুর্গাপুজো করেন না! আমরা কি এসব সহ্য করব?’

বিজেপিকে আক্রমণ করে অভিষেকের বক্তব্য, ‘দিলীপ ঘোষরা বলছে দুয়ারে সরকার, স্বাস্থ্যসাথী নাকি ভাঁওতা। আর এখানকার সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করিয়ে, বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জিন্দাবাদ। আর ওরা বলছে আয়ূষ্মান ভারত। বলুন তো, আপনারা স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পেয়ে উপককৃত হননি?’ তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্যসাথী উত্তর থেকে দক্ষিণ সকলেই এর আওতায়। অভিষেক আরও বলেন, ‘ভাঙা পা নিয়েই তৃণমূলনেত্রী নেমেছেন। ভাঙা পায়েই যুদ্ধ হবে। জয় ছিনিয়ে আনব আমরা। একথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বলেছেন। মমতাকে যতই আক্রমণ করুক না কেন, তিনি আত্মসমর্পণ করবেন না। গলা কেটে দিলেও বশ্যতা স্বীকার করবেন না।’ তিনি স্লোগান দিয়ে বলেন, ‘পুরুলিয়ার আগামির রায়, বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়।’

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.