আবারও কল্যাণের নিশানায় রাজ্যপাল! সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট মাদককাণ্ডে ধৃত বিজেপি নেতার সঙ্গে ধনখড়ের ছবি

আবারও কল্যাণের নিশানায় রাজ্যপাল! সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট মাদককাণ্ডে ধৃত বিজেপি নেতার সঙ্গে ধনখড়ের ছবি
আবারও কল্যাণের নিশানায় রাজ্যপাল! সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট মাদককাণ্ডে ধৃত বিজেপি নেতার সঙ্গে ধনখড়ের ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আবার রাজ্যপালকে আক্রমণ তৃণমূল সাংসদের। এবার মাদককাণ্ডে গ্রেফতার হওয়া বিজেপি নেতা রাকেশ সিং-এর সঙ্গে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করলেন তৃণমূল সাংসদ তথা আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার এভাবেই রাজ্যপালকে আক্রমণ করলেন তৃণমূল সাংসদ।

সম্প্রতি টুইটারে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে বিজেপি নেতা রাকেশ সিং-এর একটি ছবি পোস্ট করেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই ছবিতে লেখা ছিল, ‘কোকেন পাচারকারীর সঙ্গে মাননীয় রাজ্যপাল। রাকেশ সিংয়ের উন্নতি নাকি রাজ্যপাল পদমর্যাদার অবনতি?’ এরপরই রাজ্যপালকে ট্যাগ করে এই ছবি পোস্ট করেন তৃণমূল সাংসদ তথা আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে, কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের আক্রমণের রাজ্যপাল- এটা এই প্রথমবার নয়।

এর আগে, রাজ্যপালের অনুমতিতে নারদাকাণ্ডে শাসকদলের দুই মন্ত্রী, এক বিধায়ককে গ্রেফতার করা হলে, রাজ্যপালের কড়া ভাষায় সমালোচনা করেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। এখানেই শেষ নয়, রাজ্যপালের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করার পরামর্শও দেন। তাছাড়াও রাজ্যপালের মেয়াদ শেষে, তাঁর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ারও হুঁশিয়ারি দেন তৃণমূলের এই সাংসদ তথা আইনজীবী।

নারদাকাণ্ডে প্রভাবশালীদের গ্রেফতার হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন যে, ‘এই নাটকের মূলে আছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। যদি ফোন কলের তদন্ত হয়, তাহলে দেখা যাবে এই হেভিওয়েটদের তিনিই গ্রেফতার করিয়েছেন। আমি নিশ্চিত রাজ্যপালই হলেন ভিলেন। উনি জেনেশুনে বাংলার ক্ষতি করছেন। সংবিধান অনুযায়ী, এখন ওনার বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। কিন্তু সকলের কাছে আমি অনুরোধ করব, ধনখড়ের বিরুদ্ধে এফআইআর করুন। যেদিন তাঁর মেয়াদ ফুরোবে। সেইদিনই যাতে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে।’

সেই সময় তৃণমূলের এই নেতার মন্তব্যের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন রাজ্যপালও। তিনি কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের নিন্দা করে বলেন যে, কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের প্রবীণ নেতা। প্রবীণ সাংসদ। একজন অভিজ্ঞ আইনজীবীও বটে। এরপরেও তাঁর এই ধরনের মন্তব্যে স্তম্ভিত তিনি। পাশাপাশি রাজ্যপাল এও বলেন যে, কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের বিচার করবেন বাংলার সংস্কৃতিমনস্ক মানুষ।