এবার গোয়াতেও ‘খেলা হবে’! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ‘গোয়াক যায় দিদি’ ভিডিও

এবার গোয়াতেও ‘খেলা হবে’! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ‘গোয়াক যায় দিদি’ ভিডিও
এবার গোয়াতেও ‘খেলা হবে’! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ‘গোয়াক যায় দিদি’ ভিডিও / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ তৃণমূলের নজর এবার সুমুদ্র ঘেরা পশ্চিম রাজ্য গোয়াতে নজর তৃণমূলের। আজই দুপুরে জোড়াফুলে যোগদান করলেন গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনহো ফালেইরো। তবে, প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক একাই নন, তাঁর সঙ্গে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন আরও ৭ কংগ্রেস নেতা।

দুপুরে ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্রে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের উপস্থিতিতে তৃণমূলে যোগ দিলেন গোয়ার অন্যতম জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা তথা গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনহো ফালেইরো। তাঁর হাতে তৃণমূলের দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে দলে স্বাগত জানান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তৃণমূলে যোগ দিয়েই এই বর্ষীয়ান প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা বলেন, ‘৪০ বছর ধরে একটা দল করার পর আজ ছেড়ে দিদির সঙ্গে রাজনৈতিক কেরিয়ারে নতুন যাত্রা শুরু করার একটাই কারণ। গোয়ার এখন যোগ্য, সুদক্ষ বিকল্প দরকার। গোয়ার অস্তিত্ব, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য রক্ষার লক্ষ্যে আমিই দিদিকে ওখানে আসতে অনুরোধ করেছি।’ গোয়ায় কংগ্রেস শিবিরে রীতিমতো ধস নামিয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী-সহ আরও বেশ কয়েকজন কংগ্রেস নেতা যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে।

আর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লুইজিনহো ফালেইরোর যোগদানের সূত্র ধরেই গোয়ার জন্য নতুন ভিডিও প্রকাশ হল। ভিডিওটির নাম ‘গোয়াক যায় দিদি’। এবার ভিডিও প্রকাশ করেও গোয়ানিজদের মন জয় করার পরিকল্পনা নিয়েছে এ রাজ্যের শাসক দল। তবে, এই ভিডিওটি তৃণমূলের অফিসিয়াল ভিডিও কিনা তা জানা যায়নি।

আজই নবান্নে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও দেখা করেন লুইজিনহো ফালেইরো। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে ফালেরিওর যোগদানের কথা ট্যুইট করে জানান। এরপর ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্রে সাংবাদিক বৈঠকে হয় আনুষ্ঠানিক যোগদান পর্ব। এই বৈঠক থেকেই গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে, ‘আমি মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেছি। আমি জাতীয় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলাম আজ। কংগ্রেস থেকে আমি দুদিন আগেই পদত্যাগ করেছি। কংগ্রেস পরিবার থেকে পদত্যাগ করে আসলে আমি এসেছি বৃহত্তর কংগ্রেস পরিবার টিএমসি-তে। আমার যোগদানের মূল লক্ষ্য বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে দূর করা৷ সমস্ত ক্ষেত্রেই ওরা সংস্কৃতি নষ্ট করে চলেছে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই পশ্চিমের দ্বীপরাজ্যে রাজনৈতিক শক্তি বাড়াতে কাজ শুরু করে দিয়েছে তৃণমূলের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের টিম আই প্যাক। তাঁদের সদস্যরা গোয়া পৌঁছেছেন আগেই। শুক্রবার গেলেন দলের দুই সাংসদ। এ থেকেই স্পষ্ট, গোয়া নিয়ে মোটেই দেরি নয়, বরং ব্লুপ্রিন্ট ছকেই সেখানে সংগঠন গোছানোর কাজ শুরু করে দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল। তাই ত্রিপুরা, অসম, উত্তরপ্রদেশ, গুজরাটের পর এবার বিজেপি শাসিত গোয়ার দিকে এগোচ্ছে তারা। জানা গিয়েছে, আই প্যাকের ২০০ কর্মী ইতিমধ্যেই সমীক্ষা শুরু করেছে।