তৃণমূল কংগ্রেসের নজর এবার এই রাজ্যে! পুজোর আগেই এই রাজ্যে সফরে যেতে পারেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

তৃণমূল কংগ্রেসের নজর এবার এই রাজ্যে! পুজোর আগেই এই রাজ্যে সফরে যেতে পারেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়
তৃণমূল কংগ্রেসের নজর এবার এই রাজ্যে! পুজোর আগেই এই রাজ্যে সফরে যেতে পারেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ একুশের বিধাসভা নির্বাচনে সংখ্যা গরিষ্ঠতায় ফের একবার বাংলার শাসন ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এবার লক্ষ্য ২০২৪- এ লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্রের ক্ষমতা থেকে মোদী সরকারকে হঠানো। আর সেই লক্ষ্য পূরণের উদ্দেশ্যে ইতিমধ্যেই ময়দানে নেমে পড়েছে তৃণমূল। সামনেই বাংলার বাইরে যে সব বিজেপিশাসিত রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে, সেইসব রাজ্যে নিজেদের সংগঠন আরও মজবুত করে নেমে পড়েছে জোড়াফুল শিবির। সেই তালিকায় রয়েছে ত্রিপুরা, যোগীর উত্তরপ্রদেশ। ইতিমধ্যেই বহুবার ত্রিপুরায় গিয়েছেন তৃণমূলের নেতা-নেত্রীরা। এবার এই তালিকায় আরও এক রাজ্যের নাম যোগ হল। এবার তৃণমূলের নজর পশ্চিমের সমুদ্র ঘেরা রাজ্য গোয়া।

উল্লেখ্য, ২০২৩-এ ত্রিপুরায় নির্বাচন রয়েছে। তার আগে সেখানে রাজনৈতিক জমি আরও মজবুত করতে বদ্ধপরিকর তৃণমূল। মাটি কামড়ে বিপ্লব দেবের রাজ্যে পড়ে রয়েছেন কুণাল ঘোষ থেকে শান্তনু সেনরা। একাধিকবার গিয়েছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সেখানে বিজেপি সরকারকে উৎখাতের হুমকিও দিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, একই অবস্থা যোগীর রাজ্য উত্তরপ্রদেশেরও। পশ্চিমবঙ্গ এবং ত্রিপুরার মতো সেখানেও সংগঠন গোছাতে জোর দিচ্ছেন তৃণমূল নেতারা। যোগীর রাজ্যেও ২১ জুলাই ‘শহিদ দিবস’, ‘খেলা হবে দিবস’ পালন করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া ট্রফি নিয়ে হয়েছে ফুটবল ম্যাচও। এই পরিস্থিতিতে এবার তৃণমূলের টার্গেট গোয়া। তৃণমূলের এবারের মিশন পশ্চিমের রাজ্য গোয়া। সেই লক্ষ্যেই এদিন সকালে গোয়া গেছেন দলের সর্বভারতীয় মুখপাত্র তথা রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন, লোকসভার সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। দলীয় সূত্রে খবর, সাতদিনের সফরে তাঁরা গিয়েছেন গোয়ায়। এই ৭ দিন টানা বৈঠক করবেন দুই সাংসদ।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই এই পশ্চিমের দ্বীপরাজ্যে রাজনৈতিক শক্তি বাড়াতে কাজ শুরু করে দিয়েছে তৃণমূলের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের টিম আই প্যাক। তাঁদের সদস্যরা গোয়া পৌঁছেছেন আগেই। শুক্রবার গেলেন দলের দুই সাংসদ। এ থেকেই স্পষ্ট, গোয়া নিয়ে মোটেই দেরি নয়, বরং ব্লুপ্রিন্ট ছকেই সেখানে সংগঠন গোছানোর কাজ শুরু করে দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল।

আগামী বছর, ২০২২ সালে গোয়ায় রয়েছে বিধানসভা নির্বাচন। তাই ত্রিপুরা এবং উত্তরপ্রদেশের পাশাপাশি গোয়াও এই মুহূর্তে তৃণমূলের কাছে পাখির চোখ। তাই ত্রিপুরা, অসম, উত্তরপ্রদেশ, গুজরাটের পর এবার বিজেপি শাসিত গোয়ার দিকে এগোচ্ছে তারা। জানা গিয়েছে, আই প্যাকের ২০০ কর্মী ইতিমধ্যেই সমীক্ষা শুরু করেছে।

উল্লেখ্য, চলতি সপ্তাহেই নবান্নে মমতা-অভিষেক-প্রশান্ত কিশোরের একান্ত এবং দীর্ঘ বৈঠক হয়েছে। সেই বৈঠকে গোয়ার পরিকল্পনা নিয়েও আলোচনা হয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

তৃণমূল সূত্রে খবর, আগামী দিনে গোয়া যেতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পুজোর আগে গোয়ায় যেতে পারেন তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শোনা গিয়েছিল, গোয়ার রাজনৈতিক জমি ঠিক কেমন, তার প্রাথমিক ধাঁচটা বুঝতে গোয়ায় যাওয়ার কথা ছিল দলের সাংসদীয় কমিটির। সেইমতো আপাতত ডেরেক এবং প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঠানো হয়েছে। তবে, বিষয়টিতে গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপি।