নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর আঘাতের পূর্বাভাস ছিল, নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ তৃণমূলের

নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর আঘাতের পূর্বাভাস ছিল, নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ তৃণমূলের
নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর আঘাতের পূর্বাভাস ছিল, নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ তৃণমূলের / নিজস্ব ছবি

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ নন্দী গ্রামে ভোটের প্রচারে গিয়ে যেভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আহত হয়েছেন, সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আজ নির্বাচন কমিশনে প্রতিবাদ জানিয়ে এলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ডেরেক ও’ব্রায়েন ও চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যরা।

এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের উদ্দেশে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে, তৃণমূল কংগ্রেসের ৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে দেখা করে, আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় তাঁরা যেভাবে উদাসীনতা দেখিয়েছেন তার প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিকই ছিল। কিন্তু রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর, নির্বাচন কমিশন একের পর এক পুলিশ আধিকারিককে বদলি করেছেন। ডিজিকেও সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মতে, বিপদের সময়ও প্রশাসন পাশে আসতে ভয় পাচ্ছে।

এদিন সাংবাদিকদের পার্থ চট্টোপাধ্যায় অভিযোগের পাশাপাশি প্রশ্ন তুলে বলেছেন যে, রাজ্যে নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পর থেকে, আইন শৃঙ্খলার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর যে আঘাত হয়েছে, তার পূর্বাভাস ছিল, বিজেপি নেতাদের বক্তব্যেই তা স্পষ্ট। তারপরেও ডিজিকে সরানোর পরদিনই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এতোটা নিরাপত্তাহীন অবস্থায় ছেড়ে দেওয়া হল। তাঁর উপর যে আক্রমণ হয়েছে এর দায়িত্ব কার? নির্বাচন কমিশনকেই এই আঘাতের দায়িত্ব নিতে হবে।

এর সঙ্গে তিনি এও অভিযোগ করেন যে, বিজেপির একদল প্রতিনিধি দল যা এসে বলছে, সেটাই হচ্ছে পরে। তিনি বলেন যে, তাঁরা আশা করছেন যে, রাজ্যে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা ও রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

উল্লেখ্য, নন্দীগ্রামের ঘটনা নিয়ে ডেকের ও’ব্রায়েন জানিয়েছেন যে, নন্দীগ্রামে যা হয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য সম্বলিত একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশনে। দেশের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী যিনি ‘Z’ ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পান, তাঁর সুরক্ষারই এই অবস্থা কেন হবে, এই প্রশ্নও তিনি তোলেন। তিনি এও প্রশ্ন তোলেন যে, এর দায় কে নেবে? পাশাপাশি দাবি করেন যে, এই ঘটনার জন্য যারা দায়ী বা যারা এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.