দিলীপ ঘোষকে লক্ষ্য করে ‘খেলা হবে’ স্লোগান! উত্তপ্ত বার্নপুর

দিলীপ ঘোষকে লক্ষ্য করে ‘খেলা হবে’ স্লোগান! উত্তপ্ত বার্নপুর
দিলীপ ঘোষকে লক্ষ্য করে ‘খেলা হবে’ স্লোগান! উত্তপ্ত বার্নপুর

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কলকাতার ইকো পার্কের পর এবার আসানসোলের বার্নপুর। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষকে লক্ষ্য করে দেওয়া হল ‘খেলা হবে’ স্লোগান। এর জেরে তৃণমূল ও বিজেপির কর্মীদের মধ্যে বচসা শুরু হয়ে যায়। ধীরে ধীরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। শেষ পর্যন্ত বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বুধবার আসানসোলের বার্নপুর বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় বিজেপি চা চক্রের আয়োজন করা করে। সেখানেই যোগ দেন বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।  তিনি ছাড়াও ছিলেন, বিজেপির বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পাল-সহ অন্যান্য বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপির চা চক্র শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে উপস্থিত হন তৃণমূলের কর্মীরা। বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ, দিলীপ ঘোষ যখন গাড়িতে করে যাচ্ছিলেন, সেই সময় তৃণমূল কর্মীরা তাঁকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি করেন। ‘খেলা হবে’, ‘দিলীপ ঘোষ মুর্দাবাদের মতো স্লোগান দিতে থাকেন তাঁরা। তৃণমূল কর্মীদের স্লোগানের বিরোধিতা করেন গেরুয়া শিবিরের কর্মী-সমর্থকরা। দু’পক্ষের মধ্যেই বচসা বেঁধে যায়।

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে, ঘটনাস্থলে আসে বিশাল পুলিশবাহিনী। তৃণমূল এবং বিজেপি উভয় দলের কর্মী-সমর্থকদের সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।  বেশ কিছু সময় পর, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এদিন চা-চক্র রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তোপ দাগেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর কটাক্ষ, “রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। চারদিকে খুনখারাপি চলছে, কেউ গোয়া, কেউ ত্রিপুরা তো কেউ দিল্লি গিয়ে বসে আছেন। বাংলার মানুষের কী হবে?” এরপর চা-চক্র শেষ করে ফেরার সময় দিলীপ ঘোষকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখানোর অভিযোগ ওঠে। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পাল। বিক্ষোভ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ‘তৃণমূল মানেই গুন্ডাবাহিনী। বিনা কারণে তৃণমূলের লোকজন রাস্তা আটকে বিক্ষোভ দেখিয়েছে।’

এদিকে কী কারণে বিক্ষোভ, তা স্পষ্ট করেছেন তৃণমূল কর্মীরা। তাঁদের অভিযোগ,  ত্রিপুরায় প্রতিনিয়ত বিজেপির আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হামলার শিকার তৃণমূল নেতৃত্ব। তার প্রতিবাদেই দিলীপ ঘোষ এবং অগ্নিমিত্রা পলের সামনে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। তাঁরা আরও জানিয়েছেন, স্থানীয় মানুষরা তৃণমূলের বিক্ষোভকে সমর্থন করেছে ।

কিন্তু কী কারণে বিক্ষোভ, তা স্পষ্ট করেছেন খোদ তৃণমূল কর্মীরাই। দলীয় কর্মী সৈকত দে’র দাবি, ত্রিপুরায় প্রতিনিয়ত বিজেপির আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হামলার শিকার তৃণমূল নেতৃত্ব। তার প্রতিবাদেই দিলীপ ঘোষ এবং অগ্নিমিত্রা পলের সামনে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। স্থানীয় মানুষরা তৃণমূলের বিক্ষোভকে সমর্থন করেছে বলেই দাবি ঘাসফুল শিবিরের।

এই ঘটনার সমালোচনায় সরব বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল। রাজ্য সরকারকে খোঁচা দিয়ে তিনি বলেন, “কথা নেই বার্তা নেই তৃণমূল কর্মীরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। কীসের বিক্ষোভ? কাজের কাজ করুন। চারিদিকে দুর্নীতি। নার্স, চিকিৎসকরা অনশনে বসে আসেন। শিশু বিক্রি করা হচ্ছে। হোমে যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন মহিলারা। নিজের কাজটা আগে করুন। তারপর বিক্ষোভ।” এমনকী বিক্ষোভকারী তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের ‘গুন্ডা’ বলেও কটাক্ষ করেন তিনি।