উত্তপ্ত বরানগর! বিজেপির তারকা প্রার্থী পার্নো মিত্রকে ঘিরে বিক্ষোভ, উঠল ‘গো ব্যাক’ স্লোগানও!

উত্তপ্ত বরানগর! বিজেপির তারকা প্রার্থী পার্নো মিত্রকে ঘিরে বিক্ষোভ, উঠল 'গো ব্যাক' স্লোগানও!
উত্তপ্ত বরানগর! বিজেপির তারকা প্রার্থী পার্নো মিত্রকে ঘিরে বিক্ষোভ, উঠল 'গো ব্যাক' স্লোগানও!

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আজ রাজ্যের ৬ জেলার ৪৫ টি আসনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে পঞ্চম দফার ভোট। আর এই ভোট পঞ্চমী উৎসবে উত্তপ্ত হয়ে উঠল আলমবাজার এলাকা। বরানগরের বিজেপির তারকা প্রার্থী পার্নো মিত্রকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল কর্মীরা। সঙ্গে দেওয়া হল ‘গো ব্যাক’ স্লোগানও। উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বরানগর এলাকা। বিক্ষোভকারীদের সরাতে লাঠি চার্জ করে সিআরপিএফ। এর জেরে লাঠির আঘাতে আহত হন বেশ কয়েকজন। এঁদের মধ্যে তিনজনকে ভর্তি করা হয়েছে বরানগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে৷

বিজেপির তারকা প্রার্থী পার্নো মিত্রের অভিযোগ করেন, ‘সংশ্লিষ্ট বুথে ছাপ্পা ভোট করাচ্ছিল তৃণমূল। খবর পাওয়া মাত্রই ছুটে এসেছিলাম। তাই তৃণমূল কর্মীরা আমাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।’ যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তিনি আরও অভিযোগ করেছেন যে, এদিন তিনি আলমবাজার এলাকাতে ঢুকতেই তাঁর গাড়ি ঘিরে ধরেন এলাকার তৃণমূল কর্মীরা৷ তিনি গাড়ি থেকে নামতেই তৃণমূল কর্মীরা চড়াও হয় তাঁর উপর। পার্নোর সঙ্গীদের সঙ্গে তাঁদের হাতাহাতি পর্যন্ত হয়৷

অন্যদিকে, এলাকার কিছু বাসিন্দা পাল্টা অভিযোগ করেছেন যে, বহিরাগতদের নিয়ে এসে পার্নোই বিজেপি-কে ভোট দেওয়ার জন্য তাঁদের উপর চাপ সৃষ্টি করেন৷ এরই প্রতিবাদ করেন স্থানীয়রা৷ এর জেরে দু’পক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়৷ ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ বেশ কিছুক্ষণ ধরে এই পরিস্থিতি চলতে থাকায় উত্তেজনা বাড়তে থাকে, ভিড়ও জমে যায়৷ শেষ পর্যন্ত লাঠিচার্জ শুরু করে কেন্দ্রীয় বাহিনী৷

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজ রাজ্যে পঞ্চম দফার নির্বাচন। এদিন সকাল থেকেই বরানগরের বিভিন্ন বুথে যাচ্ছেন পার্নো। তেমনই দুপুরের দিকে বরানগরের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ৭৮ নম্বর বুথে ছাপ্পা হচ্ছে শুনে ছুটে আসেন বিজেপি প্রার্থী। সেইসময় তৃণমূল কর্মীরা তাঁকে ধাক্কা দেয় অভিযোগ। তাঁর গাড়িতেও ধাক্কাধাক্কি করা হয়। শেষে বিরাট পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে তৃণমূলের প্রার্থী তাপস রায় এই ঘটনা প্রসঙ্গে পাল্টা প্রশ্ন তোলেন যে, ‘১৮টি গাড়ি নিয়ে ঘুরছেন বিজেপির এই তারকা প্রার্থী। এতগুলো গাড়ি নিয়ে ঘোরার অনুমতি কি আদৌ আছে? বিজেপি প্রার্থীকে কোথাও আটকানো হয়নি।’ বরং তৃণমূল প্রার্থী তাপস রায় দাবি করেন যে, ‘কেন্দ্রীয় বাহিনী তাঁদের কর্মীদের ওপর লাঠি চালিয়েছে। লাঠির ঘায়ে বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী আহত হয়েছেন।’

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.