শেষমেশ কৃষকদের চাষ করার মান রাখলো টমেটো, কীভাবে এলো এই টমেটো? রইলো বিস্তারিত

শেষমেশ কৃষকদের চাষ করার মান রাখলো টমেটো, কীভাবে এলো এই টমেটো? রইলো বিস্তারিত
শেষমেশ কৃষকদের চাষ করার মান রাখলো টমেটো, কীভাবে এলো এই টমেটো? রইলো বিস্তারিত / ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ নদিয়াঃ মলয় দেঃ বাঁধাকপি, ফুলকপি সহজলভ্যতার ফলে ফসল ওঠার সময় কিছুটা দাম পেলেও, কিছুদিন পর থেকেই তা বিক্রি হয় জলের দামে! শিম,পালংশাক, মুলোর মতো বেশ কিছু সবজিরও প্রায় একই অবস্থা। তবে চাষিদের মান বাঁচালো টমেটো। শুরু থেকে প্রায় শেষ পর্যন্ত ভালো দাম পেয়েছেন বলেই জানিয়েছেন কৃষকরা।

প্রসঙ্গত উদ্ভিদবিদ্যায় টমেটো একটি ফল হলেও সারা বিশ্বের প্লেটে সবজি হিসেবে পরিচিত এটি। প্রচুর পরিমাণে আমিষ, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন এ এবং সি থাকার কারণে পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ এই ফল বা সবজিটি। এতে লাইকোপেন নামে বিশেষ উপাদান থাকায় ফুসফুস, পাকস্থলী, অগ্ন্যাশয়,কোলন স্তন, মূত্রাশয়, প্রোস্টেট ক্যান্সার ইত্যাদির নানা রোগ প্রতিরোধে অব্যর্থ পথ্য হিসেবে ফলপ্রসূ।

উল্লেখ্য পশ্চিম-দক্ষিণ আমেরিকার স্থানীয় ছোট এক ধরনের ফল থেকেই সৃষ্ট আজকের এই টমেটো। চীন, ইতালি, ব্রিটেন এর পর অবশেষে ষোড়শ শতকে পর্তুগিজ আবিষ্কারকগণ টমেটো নিয়ে আসে ভারতে। অন্যদিকে টমেটো সস জোলাপ হিসেবে ব্যবহৃত হয় চিকিৎসাশাস্ত্রে। তবে সারা বিশ্বের খাবারের প্লেটে টমেটোর দেখা মেলে।

এছাড়া রোমা, পাথরকুচি, বাহার, মহুয়া, চৈতি, মানিক, রতন এইরকমই ৫০ টিরও বেশি জাতির টমেটো দেখতে পাওয়া যায়। মূলত শীতে বেশি উৎপাদন হলেও, বর্তমানে সারা বছরই এই চাষ করা সম্ভব হচ্ছে। তবে চাষীরা এবছর শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্রায় একই দাম পেয়েছেন বলেই জানান। ফলে সবুজ হলুদ লাল এই ফল হাসি যুগিয়েছে কৃষকদের।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.