কোভিড আক্রান্ত ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব! সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই জানালেন সেই কথা

কোভিড আক্রান্ত ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব! সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই জানালেন সেই কথা
কোভিড আক্রান্ত ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব! সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই জানালেন সেই কথা / ছবি সৌজন্যে- Facebook Post by @bjpbiplab

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কোভিড আক্রান্ত হলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব! বুধবার নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জানালেন সেই কথা। তিনি জানিয়েছেন, তিনি হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

নিজেই টুইট করে লেখেন যে, ‘আমি কোভিড-১৯ পজিটিভ। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী আমি বাড়িতে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে রেখেছি। আমি সবাইকে অনুরোধ করছি, দয়া করে সমস্ত কোভিড সংক্রান্ত আচরণবিধি অনুসরণ করুন এবং নিরাপদে থাকুন’।

উল্লেখ্য, দেশের অন্যান্য রাজ্যের মতোই ত্রিপুরাতেও দ্রুত গতিতে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। করোনা সংক্রমণ রুখতে একাধিক নির্দেশিকা জারি করেছে প্রশাসন। ত্রিপুরায় রাজ্যজুড়ে চলছে টিকাকরণ কর্মসূচীও। গত জানুয়ারি মাসেই বিমানে আগরতলা পৌঁছয় করোনা ভ্যাকসিনের ৫৬ হাজার ৫০০ ডোজ। জানুয়ারি মাস থেকেই ত্রিপুরাতে চলছে করোনা টিকাকরণ প্রক্রিয়া। রাজ্যের ১৫টি সেন্টারে টিকাকরণ চলছে। প্রথম পর্যায়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের দেওয়া হয় এই প্রতিষেধক।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দেশে ফের ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে করোনা। প্রতিদিন ঝড়ের গতিতে বাড়ছে সংক্রমণ। দেশের মধ্যে বেশ কিছু রাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার কেন্দ্রের চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে। এইসব রাজ্যের মধ্যে মহারাষ্ট্রের অবস্থা সবথেকে খারাপ। বিশেষ করে মহারাষ্ট্রের মুম্বইয়ের অবস্থা খুবই ভয়ঙ্কর। এদিকে গতকালের থেকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা একধাপে আরও অনেকটাই বেড়ে গেছে। পূর্ববর্তী লক্ষাধিকের রেকর্ড একলাফে বেড়ে গেছে গত ২৪ ঘণ্টায়।

দিন দুই আগেই দৈনিক সংক্রমণ ছাড়িয়েছিল এক লক্ষের গণ্ডি। যা এই প্রথম। ২০২০ সালের রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে এ বছরে দেশের দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা। গত বছর দেশে ১৭ সেপ্টেম্বর সর্বাধিক করোনা সংক্রমণ দেখা গিয়েছিল, সেই সময় একদিনে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৯৮,৭৯৫। আমেরিকার পর ভারত এখন দ্বিতীয় দেশ যেখানে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ পার করেছে। আমেরিকার তুলনায় বর্তমানে ভারতে অনেক বেশি দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে মৃত্যুর সংখ্যা। বুধবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৭৩৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

এর মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা মহারাষ্ট্রে সবথেকে বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় সে রাজ্যে আক্রান্ত ৫৫ হাজারেরও বেশি। মহারাষ্ট্র ছাড়াও পাঞ্জাব, কর্ণাটক, ছত্তিশগড়, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যগুলিতেও রীতিমতো উদ্বেগ বাড়ছে। দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ২৮ লক্ষ ১ হাজার ৭৮৫ জন। এদিকে এই সংক্রমণের হার দেখে রীতিমতো শঙ্কিত কেন্দ্র সরকার। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যে বিরাট আকার ধারণ করতে পারে, তার আঁচ পেয়েই আগাম সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন, গত বছরের থেকে দ্রুত গতিতে সংক্রমণ হচ্ছে। আর এটা হওয়ার জন্য দায়ী, শুধুমাত্র মানুষের করোনা নিয়ে গা ছাড়া মনোভাব। মাস্ক পরছেন না অনেকেই। মানা হচ্ছে কোনও গাইডলাইন।

উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কেউ বাদ পড়ছেন না। ছোট থেকে বড় সকলেই করোনার কবলে পড়তে চলেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই কারণেই দ্রুত সব বয়সের মানুষকেই ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মূলত, ১৮ বছর থেকে সকলকেই ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি খুব শীঘ্রই শুরু হবে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.