পেটের দায়! উবের চালাচ্ছেন বিশ্বের প্রথম সারির এই ফুটবলার

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ ক্রিড়াজগতে তিনি এক উজ্জ্বল তারকা। একটা সময় বিশ্ব কাঁপানো ফুটবলার ছিলেন তিনি। দ্রুততম গোলের পাশাপাশি সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলস্কোরারের রেকর্ডও ছিল তাঁরই ঝুলিতে। এমন এক শীর্ষ স্থানীয় ফুটবলারের জীবন এখন কাটছে একজন পলাতকের মতো। পেট চালাতে এখন তিনি পেশা হিসাবে গ্রহন করেছেন উবের চালকের কাজ।

শীর্ষস্থানীয় এই ফুটবলারের নাম হাকান সুকুর। ২০০২ সালে দক্ষিন কোরিয়ার বিরুদ্ধে মাত্র ১১ সেকেন্ডে গোল করে বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুততম গোল করার নজির গড়েছিলেন তিনি। তার জন্যই সেবার বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছায় তুরষ্ক। যদিও শেষরক্ষা হয়নি। বিশ্বকাপে সেবার তৃতীয় স্থান পায় তুরষ্ক। এছাড়াও ১১২ ম্যাচে ৫১ টি গোল করে তুরষ্কের সর্বচ্চ গোলস্কোরারে তকমাও পান তিনি। কিন্তু এক এমন একজন ফুটবলারকে পলাতক হয়ে দিনযাপন করতে হচ্ছে? কেনই বা পেট চালানোর জন্য তাঁকে উবের চালাতে হচ্ছে?

জানা গিয়েছে, সুকুর এই অবস্থার মূলে রয়েছে রাজনীতি। ফুটবল থেকে অবসর নেওয়ার পর কোনভাবে তিনি তুরষ্কের রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। প্রথম দিকে বর্তমান প্রেসিডেন্ট এরদোগানের অনুগামী ছিলেন এবং সেই দলের সাংসদ হিসাবেও নিযুক্ত হন। কিন্তু পরবর্তীকালে তুরষ্কের প্রেসিডেন্টের সাথে কিছু ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। এরপরেই তিনি দল ছেড়ে দেন, নতুন করে যোগ দেন ফতেউল্লাহ গুলেনের শিবিরে। এই দলটি ছিল এরদোগান বিরোধী। কিন্তু এরদোগান ছেড়ে বিরোধী শিবিরে যোগদান করায় সুকুরের বিরুদ্ধে শুরু হয় চক্রান্ত। এরদোগানের চক্রান্ত এতটাই তীব্র হয় যে ২০১৫ সালে তিনি ক্যালিফোর্নিয়ায় চলে যেতে বাধ্য হন।

২০১৬ সালে সুকুর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ দায়ের করা হয়। গ্রেফতার করা হয় তার বাবাকে। কিন্তু ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ায় তাঁকে জেল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। একইসাথে তখনই বাজেয়াপত করা হয় সুকুরের সমস্ত সম্পত্তি। প্রথম দিকে ক্যালিফর্নিয়াতে তিনি একটি ক্যাফে চালান কিন্তু তা থেকে সেভাবে কিছু উপার্জন না হওয়ায় অবশেষে উবের চালানোর কাজে যোগ দেন তিনি। বিশ্ব কাঁপানো ফুটবলারের এমন পরিণতি ফুটবল সমর্থকদের জন্য অত্যন্ত কষ্টের।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.