বড় সাফল্য বন দফতরের! নেপালে পাচারের আগেই প্যাঙ্গোলিনের আঁশ-সহ গ্রেফতার দুই

বড় সাফল্য বন দফতরের! নেপালে পাচারের আগেই প্যাঙ্গোলিনের আঁশ-সহ গ্রেফতার দুই
বড় সাফল্য বন দফতরের! নেপালে পাচারের আগেই প্যাঙ্গোলিনের আঁশ-সহ গ্রেফতার দুই

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়িঃ ফের রাজ্যে প্যাঙ্গোলিনের আঁশ-সহ দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করলেন বন দফতরের কর্মীরা। গোপন সূত্রের খবরের ভিত্তিতে বন দফতরের শালুগাড়া রেঞ্জের বনকর্মীরা অভিযান চালান। সেই অভিযানেই প্যাঙ্গোলিনের আঁশ-সহ দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেন বনকর্মীরা।

ধৃত দুই ব্যক্তির কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ৪ কেজি ৬৭ গ্রাম প্যাঙ্গোলিনের আঁশ। বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতরা আসাম থেকে এগুলি নিয়ে নেপালে পাচার করার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। এই খবর পাওয়ার পরই, বন দফতরের শালুগাড়া রেঞ্জের বনকর্মীদের একটি টিম রেঞ্জার সঞ্জয় দত্তর নেতৃত্বে মাটিগাড়া বালাসনের কাছে ঘাঁটি গাড়ে। ওই সময় বালাসন এর কাছ থেকে ২ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতরা হলো সৌমেন সাহা ও পার্থ দাস। ধৃত দুই জনই জলপাইগুড়ি বাসিন্দা।

রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত জানিয়েছেন যে, আসাম থেকে এই প্যাঙ্গোলিনের আঁশ গুলি নেপালে পাচার করতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। অনুমান করা হচ্ছে, এই পাচারের পিছনে আরও অনেকে জড়িয়ে থাকতে পারে। তাই ধৃতদের জেরা করে আরও তথ্য জানার চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু হয়েছে।

উদ্ধার হওয়া প্যাঙ্গোলিনের আঁশ

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগেও চলতি বছরের জুলাই মাসে কলকাতায় প্যাঙ্গোলিনের দেহ পাচারের চেষ্টা বানচাল করে পুলিশ। পাচারের আগে বেন্টিঙ্ক স্ট্রিটে একটি চলন্ত বাস থেকে প্যাঙ্গোলিনের আঁশ এবং নখ উদ্ধার করে হয়েছিল। সেই ঘটনায়ও দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। বাস থামিয়ে তল্লাশি চালিয়ে ৩ কেজির বেশি আঁশ এবং ৩৮ টি নখ উদ্ধার করা হয়েছিল। সূত্রের খবর, সম্প্রতি পাচার হওয়া বন্যপ্রাণীদের তালিকায় উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে এই প্যাঙ্গোলিন পাচার।

সূত্রের খবর, এই লুপ্তপ্রায় প্রাণীর আঁশের বরাত বেশি আসে চিন থেকে। সেই দেশে এই প্রাণীর আঁশ এবং নখের বিপুল চাহিদা রয়েছে। প্যাঙ্গোলিনের আঁশ এবং নখ দিয়ে শৌখিন দ্রব্য তৈরি হয়। বেশ কিছু দেশে আবার এই প্যাঙ্গোলিন খাবার চলও আছে। বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় এই প্যাঙ্গোলিন বেশি পাওয়া যায়।  সম্প্রতি সহজে অর্থ রোজগারে উপায় হিসেবে এই প্যাঙ্গোলিনের পাচার বেড়েছে।