পাল্টা চাল মোদীর! এবার ব্রিটেনের নাগরিকরা ভারতে আসলে, থাকতে হবে ১০ দিনের নিভৃতবাসে

পাল্টা চাল মোদীর! এবার ব্রিটেনের নাগরিকরা ভারতে আসলে, থাকতে হবে ১০ দিনের নিভৃতবাসে
পাল্টা চাল মোদীর! এবার ব্রিটেনের নাগরিকরা ভারতে আসলে, থাকতে হবে ১০ দিনের নিভৃতবাসে / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ অনেক বার অনুরোধ করার পরেও কোনও কাজ হয়নি। তাই এবার একপ্রকার বাধ্য হয়েই জবাব দিল কেন্দ্রের মোদী সরকার। কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে, করোনার টিকা নেওয়া থাকলেও, ব্রিটেনের নাগরিকদের এদেশে ১০ দিনের নিভৃতবাসে থাকতে হবে। জানা গিয়েছে, চলতি মাসের ৪ থেকে এই নিয়ম কার্যকর হবে।

সূত্রের খবর, ৪ অক্টোবর থেকে ভারতে আসা ব্রিটিশদের ১০ দিনের কোয়ারিন্টিনে থাকতে হবে। করোনার টিকা নেওয়া থাকলেও তা গ্রাহ্য করা হবে না। এর পাশাপাশি ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আরটি-পিসিআর পরীক্ষার সার্টিফিকেটও আবশ্যক। ভারতে আসার ৮ দিনের মাথায় পুনরায় করাতে হবে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা। এই নতুন নিয়মাবলী ব্রিটেনের নিয়মের সঙ্গে প্রায় একই। কাজেই মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্তকে পাল্টা কৌশল হিসেবেই দেখছে ওয়াকিবহাল মহল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত মাসেই ব্রিটেন সরকার নির্দেশিকা জারি করে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইজরায়েল ও অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের দু’টি টিকার ডোজ নেওয়া থাকলে কোয়ারিন্টিনে থাকতে হবে না। বাকি দেশগুলির ক্ষেত্রে কঠোর নিয়ম পালন বাধ্যতামূলক। এর জেরে, টিকা নেওয়া থাকলেও সেদেশে ১০ দিনের নিভৃতবাসে থাকতে হচ্ছিল ভারতীয়দের। তাছাড়া, প্রাথমিকভাবে কোভিশিল্ডকে স্বীকৃতি দেয়নি ব্রিটেন। পরে মান্যতা দিলেও কোউইন অ্যাপের মাধ্যমে শংসাপত্রকে অনুমোদন দেওয়া হয়নি। ব্রিটেনের আচরণকে ‘বৈষম্যমূলক’ বলে বিরোধিতা করে জবাবে পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছিলেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ শ্রিংলা।

এনিয়ে আগে ভারত এবং ব্রিটেনের মধ্যে একাধিক দফায় বৈঠক হয়। ব্রিটেনের হাইকমিশনার অ্যালেক্স এলিসের সঙ্গে আলোচনা করেন জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের অধিকর্তা আরএস শর্মা। বৈঠকের পর দু’জনেই সন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু বিষয়টির যে মেটেনি, তা ভারতের এই পদক্ষেপ থেকেই স্পষ্ট বলে মনে করছেন অনেকেই।