লখিমপুরে মৃত ৪ কৃষক পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ও চাকরির ঘোষণা উত্তরপ্রদেশ সরকারের!

লখিমপুরে মৃত ৪ কৃষক পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ও চাকরির ঘোষণা উত্তরপ্রদেশ সরকারের!
লখিমপুরে মৃত ৪ কৃষক পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ও চাকরির ঘোষণা উত্তরপ্রদেশ সরকারের!

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরির ঘটনায় ইতিমধ্যেই দেশজুড়ে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে উত্তরপ্রদেশ সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে প্রতিটি বিরোধী রাজনৈতিক দল।

গতকালই লখিমপুরের ঘটনায় কৃষকদের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। গতকালই তিনি জানিয়েছেন যে, ঘটনার যথাযথ তদন্ত হবে। এবং দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। এরপর এদিনই উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথের সরকারের পক্ষ থেকে নিহত চার কৃষকের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ এবং পরিবারের একজন সদস্যকে সরকারি চাকরি দেওয়ার ঘোষণা করা হল।

উল্লেখ্য, সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব এদিন সকালে লখনউয়ের বিক্রমাদিত্য় মার্গের বাড়ি থেকে লখিমপুরে যাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু পুলিশের বাধা দেওয়ায় তিনি বাড়ির সামনেই পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে শুরু করেন। ধর্ণায় বসে অখিলেশ যাদব বলেন, ‘ব্রিটিশরাও কৃষকদের উপর এতটা অত্যাচার করেনি, যা বিজেপি সরকার করছে। উপ মুখ্যমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর ইস্তফা দেওয়া উচিত। যে সমস্ত কৃষকরা প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের পরিবারকে ১ কোটি টাকা করে দিতে হবে এবং তাদের পরিবারের সদস্য়দের সরকারি চাকরিও দিতে হবে।’

আবার, কৃষক সংগঠনগুলির তরফেও জানানো হয় যে, লখিমপুর খেরির ঘটনার প্রতিবাদে গোটা দেশজুড়ে জেলাশাসকদের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখানো হবে। তাঁরাও মৃতদের পরিবার পিছু ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি নিহতদের পরিবারের সদস্যর সরকারি চাকরির দাবি জানিয়েছেন। একইসঙ্গে মন্ত্রী-পুত্রের শাস্তির দাবিও তোলা হয়ছে। এই দাবিগুলি পূরণ না করা হলে, কৃষকদের শেষকৃত্যও করা হবে না বলেও জানানো হয়েছে।

এরপরই এদিন যোগী সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে, রবিবার অশান্তির ঘটনায় যে চারজন কৃষকের মৃত্যু হয়েছিল, তাঁদের পরিবারকে ৪৫ লাখ টাকা করে আর্থিক ক্ষতিপূরণ এবং পরিবারের একজন সদস্যকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে। এর পাশাপাশি গতকালের ঘটনায় আহতদের ১০ লাখ টাকা করেও দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে সরকারি তরফে। আরও বলা হয়েছে যে, লখিমপুরের ঘটনায় হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারককে দিয়ে ঘটনার তদন্ত করা হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতকাল কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্র ও রাজ্যের উপ মুখ্যমন্ত্রী কেশব মৌর্যর সফরের প্রতিবাদে এবং কেন্দ্রের নয়া তিন কৃষি আইনের প্রতিবাদে সকাল থেকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন এলাকার কৃষকরা। অভিযোগ, সেই সময় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কনভয়ের একটি গাড়ি ৪ কৃষককে পিষে দেয়। সেই গাড়িতে ছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রর ছেলে। ওই খবর ছড়িয়ে পড়তেই হিংসা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। লখিমপুর খেরির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অরুণ কুমার সিং জানিয়েছেন, ওই সংঘর্ষে ৪ কৃষক সহ মোট ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। অভিযোগ ওঠে, কৃষকরা দু’টি SUV গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয়। সূত্রের তরফে দাবি করা হয়, গাড়িতে থাকা চারজনের মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই অজয় কুমার মিশ্রের ছেলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এছাড়াও একাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। যদিও ছেলের বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।