উপস্থিত বুদ্ধির জোরে অপহৃত নাবালিকাকে গভীর কুয়ো থেকে উদ্ধার করলেন এক কনস্টেবল

উপস্থিত বুদ্ধির জোরে অপহৃত নাবালিকাকে গভীর কুয়ো থেকে উদ্ধার করলেন এক কনস্টেবল
উপস্থিত বুদ্ধির জোরে অপহৃত নাবালিকাকে গভীর কুয়ো থেকে উদ্ধার করলেন এক কনস্টেবল / ছবি সৌজন্যে- Screengrab from Video Tweeted By @Uppolice

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ রক্ষকই ভক্ষক এই কথা খুবই প্রচলিত, প্রায়ই শোনা যায়। এমন ঘটনার কথা প্রায়ই শোনা যায়, যখন একজন সাধারণের রক্ষক ভক্ষকের ভুমিকা পালন করেন।

কিন্তু এর উল্টোটা যে ঘটে না, তা কিন্তু মোটেও নয়। কারণ ব্যতিক্রম তো থাকেই। তাই হাজার ভালোর মধ্যে একটা খারাপ ঘটনা ঘটে। যা অবশ্যই অন্যায়। কিন্তু ভালো ঘটনা, সেটাও তো ফলাও করে বলা দরকার, সকলের জানা দরকার প্রশংসা হওয়া দরকার, বাহবা দেওয়া দরকার, যাতে সাধারণের রক্ষকের উপর- পুলিশের উপর আস্থা বজায় থাকে। ঠিক যেমনটা অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গিয়ে ছিছিকার করা হয়। সেই একই উৎসাহ এবং উদ্যম নিয়ে।

এবার তেমনটাই হয়েছে, নেটপাড়ায় বয়ে গেছে প্রশংসার বন্যা। সঙ্গে অজস্র শুভেচ্ছা আর বাহবা। নেটিজেনরা এই রক্ষকের কৃতিত্বকে আরও আরও মানুষের কাছে তুলে ধরেছেন, ভাইরাল করেছেন তাঁর কৃতিত্বকে। তাই আজ নারী দিবসের শুভক্ষণে সোশ্যাল মিডিয়া তাঁকে অকুণ্ঠ ধন্যবাদ জানাচ্ছে। সেই রক্ষকের নাম কমল কান্ত। তিনি উত্তরপ্রদেশের একজন কনস্টেবল। তিনি নিজের উপস্থিত বুদ্ধির পরিচয় দিয়ে, এক নাবালিকার প্রাণ বাঁচিয়েছেন। তাকে উদ্ধার করেছেন। উত্তরপ্রদেশের পুলিশ গোটা ঘটনাটার ভিডিও শেয়ার করেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যা দেখে কুর্নিশ জানাচ্ছে মানুষ।

এক নাবালিকাকে অপহরণ করে ৩০ ফুট গভীর কুয়োর মধ্যে ফেলে দিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। ঠিক যখন ওই নাবালিকার খোঁজ শুরু করে পুলিশ চতুর্দিকে। এই তল্লাশি চলার সময় পুলিশের হাতে যা যা তথ্য এসেছিল, তার উপর ভিত্তি করে, নিজস্ব বুদ্ধি খাটিয়ে কমল কান্ত কুয়ো থেকে বের করে আনেন ওই নাবালিকাকে। বিপদ আছে জেনেও, তার পরোয়া না করে, নিজের কর্তব্যে অবিচল থেকেছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও শেয়ার করে উত্তরপ্রদেশের পুলিশ জানিয়েছে, চলচ্চিত্রের নায়কের মতো নাবালিকাকে উদ্ধার করেছেন কনস্টেবল কমল কান্ত। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হওয়ার পর, অনেকেই তাঁকে স্যালুট জানিয়েছেন। পাশাপাশি লাইক এবং প্রশংসাসূচক মন্তব্য তো আছেই।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.