ভ্যাকসিন নিলেও এই নিয়মগুলি মানা আবশ্যিক, পরামর্শ কেন্দ্রের প্রিন্সিপল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজারের

ভ্যাকসিন নিলেও এই নিয়মগুলি মানা আবশ্যিক, পরামর্শ কেন্দ্রের প্রিন্সিপল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজারের
ভ্যাকসিন নিলেও এই নিয়মগুলি মানা আবশ্যিক, পরামর্শ কেন্দ্রের প্রিন্সিপল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজারের / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ করোনা মোকাবিলায় টিকাকরণের উপর শুরু থেকেই গুরুত্ব আরোপ করে এসেছেন চিকিৎসক এবং বিশেষজ্ঞরা। আরও বেশি করে টিকাকরণের কথা তাঁরা বলছেন। যদিও টিকার দুটি ডোজ নেওয়ার পরেও অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাও করোনার ভয়াবহতা রুখতে, ভ্যাকসিনই একমাত্র উপায় বলে মনে করছেন চিকিৎসক এবং বিশেষজ্ঞমহল।

সরকারি হিসেব অনুযায়ী, দেশে এখনও পর্যন্ত প্রায় ১৮ কোটি মানুষকে করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারপরেও বাড়ছে সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে দেশের সাধারণ মানুষকে গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিলেন কেন্দ্রের প্রিন্সিপল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজার কে বিজয় রাঘবন। সাধারণ মানুষের উদ্দেশে তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন যে, সকলে যেন টিকা নিলেও, করোনাবিধি যথাযথ ভাবে মেনে চলেন।

শনিবার কে বিজয় রাঘবন বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উপর মারাত্মক চাপ সৃষ্টি করেছে। তাই কোনও ধরনের অনিয়ম সেই চাপ আরও কয়েকগুন বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই যাঁদের টিকা নেওয়া হয়নি বা টিকা নেওয়া হয়েছে, তাঁরা সকলেই অবশ্যই নিয়ম মেনে চলুন। মাস্ক পরুন, স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন। দুরুত্ববিধি মেনে চলুন।’ এর পাশাপাশি তিনি এও বলেছেন যে, করোনার তৃতীয় ঢেউ আরও মারাত্মক হতে পারে। তবে সেটা কবে আসবে, তা এখনও জানা যায়নি। তবে, সেই ঢেউকে প্রতিরোধ করার জন্য আগাম প্রস্তুত থাকাও জরুরি।

এদিকে দেশে টিকার সঙ্কট কাটাতে ইতিমধ্যেই করোনা মোকাবিলায় কোভ্যাকসিন, কোভিশিল্ডের পর রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন ‘স্পুটনিক ভি’কে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্র। সেই ভ্যাকসিন সম্ভবত আগামী সপ্তাহ থেকেই ভারতের বাজারে পাওয়া যাবে। এমনটাই সম্প্রতি জানিয়েছে নীতি আয়োগ। উল্লেখ্য, রাশিয়া থেকে স্পুটনিক ভি (Sputnik V) ভারতে এসে গিয়েছিল এ মাসের প্রথম দিনই। প্রাথমিকভাবে দেড় লক্ষ ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছিল। এবার তা বাজারে আসতে চলেছে। সূত্রের খবর, আগামী সপ্তাহ থেকে ভারতের বাজারে মিলবে রুশ করোনা ভ্যাকসিন। এবার কোভ্যাকসিন, কোভিশিল্ডের পাশাপাশি এই ভ্যাকসিন দিয়েও চলবে টিকাকরণ প্রক্রিয়া।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, শনিবার সামান্য কমেছে দৈনিক সংক্রমণ। কমেছে মৃত্যুর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লক্ষ ২৬ হাজার ৯৮ জন। আর গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৮৯০ জনের। এদিকে একদিনে করোনাকে জয় করে সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ৫৩ হাজার ২৯৯ জন। এই সংখ্যা দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যার থেকে বেশি। যা অবশ্যই স্বস্তির খবর।