জেদের কাছে হার মানল বয়স! পুত্রবধূর সাহায্যে ৬৭ বছর বয়সে PhD সম্পূর্ণ করলেন এই প্রৌঢ়া

জেদের কাছে হার মানল বয়স! পুত্রবধূর সাহায্যে ৬৭ বছর বয়সে PhD সম্পূর্ণ করলেন এই প্রৌঢ়া
জেদের কাছে হার মানল বয়স! পুত্রবধূর সাহায্যে ৬৭ বছর বয়সে PhD সম্পূর্ণ করলেন এই প্রৌঢ়া

জেদের কাছে হার মানল বয়স। পড়াশোনার জন্য যে বয়স কোনও বাধা হতে পারে না তা যেন ফের একবার প্রমাণ হল। মাত্র ২০ বছরে বিয়ে। সংসার ও পারিপার্শ্বিক চাপে ছাড়তে হয়েছিল পড়াশোনা। কিন্তু ইচ্ছেটা মুছে যায়নি মন থেকে। তাই পুত্রবধূর সহায়তায় কঠিন পরিশ্রমে অবশেষে ৬৭ বছরে এসে মিলল সফলতা। প্রৌঢ়ত্বের দোরগোড়ায় পৌঁছে PhD ডিগ্রি লাভ করলেন গুজরাটের ভদোদরার উষা লোদয়া।

ছেলেবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্রী হিসেবে নাম ছিল তাঁর। ইচ্ছে ছিল বড় হয়ে ডাক্তার হবেন তিনি। কিন্তু কলেজে প্রবেশ মাত্রই সেই স্বপ্নে ইতি টানতে হল। মাত্র ২০ বছর বয়সে বিয়ে হয়ে গেল উষাদেবীর। সংসারের যাঁতাকলে পড়ে পড়াশোনাটা আর হয়ে ওঠেনি। তবে মনে ইচ্ছে ছিল ষোলআনাই। তাই বছরের পর বছর সংসারের ফাঁকেই পড়াশোনা করার পথ খুঁজে নিতে থাকেন তিনি। সন্তানরা বড় হলে, সংসারের চাপ একটু কম থাকলেই বইপত্র নিয়ে বসে যেতেন তিনি। খুঁজে নিতেন মেধা বিকাশের পথ।

উষাদেবীর প্রচেষ্টা দেখে এগিয়ে এলেন তাঁর পুত্রবধূও। বাড়িয়ে দিলেন সাহায্যের হাত। তিনি প্রৌঢ়াকে খোঁজ দিলেন অনলাইন কোর্সের। এরপর আর সুযোগ হাতছাড়া করেননি তিনি। মহারাষ্ট্রের শত্রঞ্জয় অ্যাকাডেমিতে জৈনইজম নিয়ে স্নাতক পাশ করেন উষা লোদয়া। কঠোর পরিশ্রম, অধ্যবসায় এবং জেদের জোরে এরপর একের পর এক উচ্চশিক্ষার ডিগ্রি পেরোতে সমর্থ হন ষাটোর্ধ্ব প্রৌঢ়া। দিনে প্রায় ৭-৮ ঘন্টা পড়াশোনা চলতে থাকে। পাশ করেন স্নাতকোত্তরও।

অবশেষে ৬৭ বছর বয়সে এসে সফলতা যেন হাতের মুঠোয় ধরা দেয়। উষাদেবী লাভ করেন PhD ডিগ্রি। তাঁর এই কাহিনীই যেন ফের ব্যক্ত করে, ইচ্ছেশক্তি এবং জেদের বশে যে কোনও অসম্ভবও যেন সম্ভব হয়ে ওঠে। হাল না ছেড়ে এগিয়ে গেলেই মিলবে সফলতা।