মানবিক! তৎপরতার সঙ্গে রক্তদান করে মহিলার প্রাণ বাঁচালেন বারাণসীর এই পুলিশকর্মী

মানবিক! তৎপরতার সঙ্গে রক্তদান করে মহিলার প্রাণ বাঁচালেন বারাণসীর এই পুলিশকর্মী
মানবিক! তৎপরতার সঙ্গে রক্তদান করে মহিলার প্রাণ বাঁচালেন বারাণসীর এই পুলিশকর্মী

পুলিশ মানুষের বন্ধু। যে কোনও বিপদে মানুষের পাশে এসে দাঁড়ানোই পুলিশের কাজ। তবে শুধু সামাজিক বা প্রশাসনিক কাজকর্মই নয়, সাধারণ মানুষের ব্যক্তিগত জীবনেও যে কোনও প্রয়োজনে প্রায়ই পাশে এসে দাঁড়িয়েছে এ দেশের প্রশাসন বাহিনী। সেরকমই আরেকটি ঘটনার সাক্ষী রইল বারাণসী। যেখানে অত্যন্ত তৎপরতার সঙ্গে নিজের রক্ত দান করে এক মহিলার প্রাণ বাঁচালেন পুলিশকর্মী।

সম্প্রতি বারাণসী পুলিশ ট্যুইটারের মাধ্যমে শেয়ার করেছে এই খবর৷ সেখান থেকেই জানা যায়, বীণা দেবী নামে এক মহিলার দ্রুত রক্তের প্রয়োজন হয়ে পড়ে। তাঁকে বাঁচাতে হলে সত্বর রক্ত দিতে হবে। এদিকে কোনও রক্তদাতা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। হঠাতই হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে এ খবরটি নজরে আসে পুলিশকর্মী রাজীব সিংয়ের। তা দেখা মাত্রই মনস্থির করে ফেলেন তিনি। থানা থেকেই ইউনিফর্ম পরা অবস্থায় তিনি চলে যান হাসপাতাল। এরপর নিজের রক্ত দান করেন বীণা দেবীকে নতুন জীবন ফিরিয়ে দেন।

বারাণসী পুলিশের পোস্টটি ইতিমধ্যেই বেশ ছড়িয়ে পড়েছে নেটদুনিয়ায়। এই মানবিক উদ্যোগের জন্য রাজীবকে ধন্য ধন্য করেছেন নেটজনতা। তাঁর মহত্বের জন্য তাঁকে কুর্নিশও জানিয়েছেন অধিকাংশ মানুষ৷ অনেকে আবার এও মন্তব্য করেছেন রাজীবের মতো মানুষগুলিই এখনও প্রমাণ করেন যে, মানবিকতা আজও বেঁচে রয়েছে। তাঁর মতো পুলিশকর্মীরা রয়েছেন বলেই মানুষ এখনও বন্ধুর মতো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারে তাঁদের দিকে। বিপদের দিনে তাঁরাই মানুষের পাশে এসে দাঁড়ান। তাঁরাই তো এই সমাজের আসল ‘রক্ষক’!

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.