বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

সরযূ নদীতে স্নানের সময় বউকে চুমু, যুবককে বেধড়ক মার ক্ষিপ্ত জনতার! রইল ভাইরাল ভিডিও

চৈত্রী আদক

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২২, ১১:২০ এএম | আপডেট: জুন ২৩, ২০২২, ১১:২০ এএম

সরযূ নদীতে স্নানের সময় বউকে চুমু, যুবককে বেধড়ক মার ক্ষিপ্ত জনতার! রইল ভাইরাল ভিডিও
সরযূ নদীতে স্নানের সময় বউকে চুমু, যুবককে বেধড়ক মার ক্ষিপ্ত জনতার! রইল ভাইরাল ভিডিও

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ নদীতে স্নানের সময় স্ত্রীকে একটা চুমু খেয়েছিলেন স্বামী। এটাই ছিল তাঁর ‘অপরাধ’। আর তাতেই ক্ষেপে উঠল জনতা। যুবককে ধরে বেধড়ক মারধর করা হল। রীতিমতো মারতে মারতে জল থেকে তুলে দেওয়া হল স্বামী-স্ত্রীকে। অযোধ্যার এহেন নিন্দনীয় ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওটিকে কেন্দ্র করে নিন্দার ঝড় বয়ে গিয়েছে নেটপাড়ায়। অপরাধীদের শনাক্ত করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে অযোধ্যা পুলিশ।

ঠিক কী ঘটেছিল সেদিন? অযোধ্যার পবিত্র সরযূ নদীতে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে স্নান করতে নেমেছিলেন স্বামী। গভীর জলে ডুব দিতে গিয়ে বারবার শরীরের ভারসাম্য হারিয়ে ফেলছিলেন স্ত্রী। জলের ধাক্কায় পা টলমল হওয়ার অবস্থা। তাই বাধ্য হয়ে স্বামীকে আঁকড়ে ধরেন। ঠিক সেই সময় স্ত্রীর গালে একখানা চুমু খান স্বামী।‌ ব্যস তাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে ওই নদীতে স্নানরত জনতা। ওই যুবককে এক ব্যক্তি রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “এটা অযোধ্যা এখানে এসব অসভ্যতামি চলবে না।”

কেবল মুখের কথাতেই থেমে থাকেননি তিনি। যুবকের গায়ে হাতও তোলেন। স্ত্রী বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলেও লাভ হয়নি। ততক্ষণে সেখানে আরও অনেক লোক জড়ো হয়ে গিয়েছে। শুরু হয়েছে একের পর এক লাথি, চড়। এত লোকের প্রহারের মাঝে অসহায় অবস্থা স্বামী-স্ত্রীর। স্বামীকে মারের হাত থেকে বাঁচানোর প্রাণপন চেষ্টা করছেন স্ত্রী। কিন্তু অত লোকের মাঝে তা একপ্রকার অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। দম্পতিকে ওভাবে মারতে মারতেই তুলে দেওয়া হয় নদী থেকে।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই এই ঘৃণ্য ঘটনার বিরুদ্ধে সুর জড়িয়েছেন নেটিজেনরা। বয়ে গিয়েছে নিন্দার ঝড়। সকলের একটাই প্রশ্ন, অযোধ্যা হোক বা অন্য কোথাও, স্ত্রীকে চুমু খাওয়া কীভাবে স্বামীর অপরাধ হতে পারে? অনেকে আবার লিখেছেন, দেশজুড়ে এত অপরাধ, ধর্ষণ, খুনের মতো ঘটনা ঘটছে। কই তখন তো জনতা এত ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে না? তাহলে স্ত্রীকে চুমু খাওয়া নিয়ে কেন প্রহার করা হল স্বামীকে?

ইতিমধ্যেই ঘটনার ভিডিওটি পুলিশের কাছে পৌঁছেছে। তদন্ত চলছে। শুরু হয়েছে অপরাধীদের শনাক্ত করার কাজ। অযোধ্যা পুলিশ টুইট করে জানিয়েছে, গোটা ঘটনার তদন্ত করছে অযোধ্যা কোতোয়ালি থানার পুলিশ। এর পাশাপাশি অপরাধীদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।