শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০২২

ল্যাপটপ অর্ডার করে পেলেন কাপড় কাচা সাবান! ফ্লিপকার্টের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে পোস্ট গ্রাহকের

মৌসুমী মোদক

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২, ০২:২৭ পিএম | আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২, ০২:৩৬ পিএম

ল্যাপটপ অর্ডার করে পেলেন কাপড় কাচা সাবান! ফ্লিপকার্টের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে পোস্ট গ্রাহকের
ল্যাপটপ অর্ডার করে পেলেন কাপড় কাচা সাবান! ফ্লিপকার্টের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে পোস্ট গ্রাহকের

অনলাইনে অর্ডার করেছিলেন একটি দামি ল্যাপটপ, বাড়িতে যখন পার্সেল এল তাতে রয়েছে বেশ কয়েকটি কাপড় কাচার সাবান। এই ঘটনায় হুলস্থূল নেটদুনিয়ায়। ই-কমার্স সংস্থাগুলি গ্রাহকদের সব সময়েই সেরা পরিষেবা দেওয়ার দাবি করে। কিন্তু অনালাইনে ল্যাপটপ অর্ডার করা এক গ্রাহক যে তিক্ত অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছে তা জেনে হুঁশ উড়েছে নেটিজেনদের।

‍‍`সিজন সেল’ শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই রকম একটি ঘটনা সামনে এসেছে। আসলে, এক ব্যক্তি অনলাইনে একটি ল্যাপটপ অর্ডার করেছিলেন। কিন্তু অর্ডারটি তার কাছে যখন এসে পৌঁছাইয় তখন দেখা যায় পার্সেলের ভিতর রয়েছে বেশ কয়েকটি কাপড় কাচার সাবান।  গ্রাহক এব্যাপারে অভিযোগ জানালে, কোম্পানি তাদের ‘নো রিটার্ন পলিসি’র উল্লেখ করে। এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় গোটা ঘটনাটি সামনে আনে গ্রাহক।

যশস্বী শর্মা, আইআইএম স্নাতক, ঘটনাটি উল্লেখ করে লিঙ্কডইন-এ একটি পোস্ট করেন।  তিনি তার পোস্টে দাবি করেন ‘ফ্লিপকার্টের বিগ বিলিয়ন ডেস সেল’- উপলক্ষে সে  তার বাবার জন্য একটি ল্যাপটপ অর্ডার করে। কিন্তু যখন অর্ডারটি যখন আসে তখন দেখা যায় পার্সেলের মধ্যে রয়েছে বেশ কয়েকটি কাপড় কাচার সাবান। 

ল্যাপটপের পরিবর্তে, তারা ফ্লিপকার্ট থেকে ঘড়ির ডিটারজেন্টে সাবানের প্যাকগুলি দেখে অবাক হয়ে যান তারা সকলেই। সঙ্গে সঙ্গে সংস্থার কাস্টমার কেয়ার সার্ভিসে বিষয়টি উল্লেখ করেন তিনি। সংস্থার তরফে নো রিটার্নের উল্লেখ করা হয়। যশস্বী বলেন, ল্যাপটপের বদলে ঘড়ির সাবান ডেলিভারির সিসিটিভির প্রমাণও রয়েছে তার কাছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও কোম্পানির পক্ষ থেকে বিষয়টি অস্বীকার করা হচ্ছে!

যশস্বী তার পোস্টে লিখেছেন যে ডেলিভারি বয় পার্সেলটি তড়ঘড়ি দিয়েই চলে যান। গোটা ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ তার কাছে রয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। প্যাকেজটি খোলার সময় তিনি আনবক্সের একটি ভিডিওও করেছিলেন, যাতে স্পষ্টভাবে দেখা যায় যে বাক্সে কিছু সাবান বার রয়েছে, ল্যাপটপ নয়। কিন্তু তা সত্ত্বেও, ফ্লিপকার্টের সিনিয়র কাস্টমার কেয়ার এক্সিকিউটিভ তাকে জানান যে এটি ফেরত হবে না। এ কারণেই তারা বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলেছেন।

তিনি তার পোস্টে ফ্লিপকার্টের সিইও কল্যাণ কৃষ্ণমূর্তি এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে ট্যাগ করেছেন। হাজার হাজার মানুষ এই পোস্ট দেখেছেন। অনেকেই ই-কর্মাসের এহেন আচরণে তাদের ক্ষোভ উগরে দেন।