সোমবার, ০৮ আগস্ট, ২০২২

১০০ টাকা তুলতে গিয়ে চোখ কপালে! দিনমজুরের অ্যাকাউন্টে হাজার হাজার কোটি ব্যালেন্স

মৌসুমী মোদক

প্রকাশিত: আগস্ট ৩, ২০২২, ০৮:২৯ পিএম | আপডেট: আগস্ট ৭, ২০২২, ১২:১৫ এএম

১০০ টাকা তুলতে গিয়ে চোখ কপালে! দিনমজুরের অ্যাকাউন্টে হাজার হাজার কোটি ব্যালেন্স
১০০ টাকা তুলতে গিয়ে চোখ কপালে! দিনমজুরের অ্যাকাউন্টে হাজার হাজার কোটি ব্যালেন্স / প্রতীকী ছবি

সামান্য ১০০ টাকা তুলতে গিয়েই চোখ ছানাবড়া! অ্যাকাউন্টে নাকি ২৭ হাজার কোটি টাকা! তা দেখে কার্যত ভিরমি খাওয়ার দশা মাঠে-ঘাটে কাজ করা দিনমজুর বিহারীলালের। সংসারের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার জন্য টাকা তুলতে গিয়েছিলেন ওই শ্রমিক। আর টাকা তোলার পর যেই ব্যালেন্স চেক করলেন অমনি চোখ কপালে। তাঁর অ্যাকাউন্টে ২৭ হাজার কোটি টাকা!

এত টাকা কীভাবে তাঁর অ্যাকাউন্টে এল তা নিয়ে ধন্দে পড়ে যান ওই দিনমজুর৷ সঙ্গে সঙ্গে তিনি ছুটে যান ব্যাঙ্কে। সেখানে গিয়ে এক ব্যাঙ্ক কর্মীকে তাঁর অ্যাকাউন্টে থাকা টাকার অঙ্ক জানানোর অনুরোধ করেন তিনি। ব্যাঙ্ককর্মীও তখন জানান বিহারীলালের অ্যাকাউন্টে ২৭ হাজার কোটি টাকাই রয়েছে। যা শুনে কার্যত হতভম্ব হয়ে পড়েন ওই শ্রমিক।

এমন আশ্চর্য কাণ্ডটি ঘটে উত্তরপ্রদেশের কনৌজ জেলায়। এই নিয়ে শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়। এত টাকা বিহারীলালে অ্যাকাউন্টে কোথা থেকে এল তা নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান  ব্যাঙ্ক আধিকারিকরাও। যদিও এর আগে এরকম একটি ঘটনা ঘটেছিল বিহারের কাটিহারে। সেখানে ষষ্ঠ শ্রেণীর দুই ছাত্রের অ্যাকাউন্টে জমা টাকার পরিমাণ দেখিয়েছিল ৯০০ কোটিও বেশি। সেই ঘটনাতেও হইচই পড়ে গিয়েছিল এলাকায়। পরে জানা গিয়েছিল সিস্টেমের ত্রুটির কারণেই এই বিভ্রাট ঘটেছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বিহারীলাল জানান, "আমি ইটভাটায় কাজ করি। সংসারের জিনিস কেনার জন্য ১০০ টাকা তুলতে গিয়ে জানতে পারি আমার অ্যাকাউন্টে ২৭ হাজার কোটি টাকা রয়েছে। আমি তখনই ব্যাঙ্কে ছুটে যাই। সেখানে গিয়ে তিনবার আমি ব্যালেন্স চেক করি। একই টাকা দেখায়। পরে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকে সবটা খুলে বললে তাঁরা আমাকে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে বলেন। ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর আমাকে জানান, আমার অ্যাকাউন্টে ১২৬ টাকা ব্যালেন্স রয়েছে।"

একই কথা বলেন ওই ব্যাঙ্কের সিনিয়র ম্যানেজার অভিষেক সিনহাও। সাংবাদিকদের তিনি জানান, "কোনও কারণে বিহালীলালের অ্যাকাউন্টে এত পরিমাণ টাকা এসেছিল। সিস্টেমের ত্রুটির কারণেই হয়তো এমনটা ঘটেছে। আমরা কিছু সময়ের জন্য ওঁর ওই অ্যাকাউন্ট থেকে সকল প্রকার ট্রাকজ্যাকশন স্থগিত রাখতে বাধ্য হই। তবে পরে সব ঠিক হয়ে গিয়েছে। এখন ওঁর অ্যাকাউন্টে ১২৬ টাকা ব্যালেন্সই রয়েছে।"