টি-২০-তে বিরাটের পদত্যাগ, ‘মেন্টর’ ধোনির নিয়োগ! বিসিসিসি-এর বৃহত্তর পরিকল্পনারই কি অংশ?

টি-২০-তে বিরাটের পদত্যাগ, 'মেন্টর' ধোনির নিয়োগ! বিসিসিসি-এর বৃহত্তর পরিকল্পনারই কি অংশ? / Image Source : Instagram @virat.kohli
টি-২০-তে বিরাটের পদত্যাগ, 'মেন্টর' ধোনির নিয়োগ! বিসিসিসি-এর বৃহত্তর পরিকল্পনারই কি অংশ? / Image Source : Instagram @virat.kohli

সামনেই টি-২০ বিশ্বকাপ। আর এই বিশ্বকাপে জাতীয় দলের মেন্টর হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে৷ আর ধোনিকে নিয়ে চর্চা কিছুটা থিতু হতে না হতেই আরেক চমক দিলেন দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। গত বৃহস্পতিবারই তিনি জানিয়ে দিলেন, কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের পরই টি-২০ ক্রিকেটের নেতৃত্ব ছাড়বেন কোহলি। এরপরই আলোচনা চলছে, বিরাটের আচমকা পদত্যাগ এবং মেন্টর হিসেবে ধোনির নিয়োগ কি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বৃহত্তর পরিকল্পনাই অংশ? অন্তত ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা তা-ই মনে করছেন।

কোহলি দাবী করেছিলেন, নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে কোচ রবি শাস্ত্রী এবং রোহিত শর্মার সঙ্গে আলোচনা করেছেন তিনি। একইসঙ্গে বোর্ডের তরফে সৌরভ গাঙ্গুলি ও জয় শাহ’র সঙ্গেও তাঁর কথা হয়েছে। সবার সঙ্গে আলোচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কোহলির টি-২০ ক্যাপ্টেন্সি ছাড়ার ঘোষণার পরই বিসিসিআইয়ের তরফে জয় শাহও জানান, বোর্ডের তরফে বেশ কিছুদিন ধরেই এই বিষয়ে আলোচনা চলছিল। কোহলির জাতীয় দলের টি২০ নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত সম্মিলীত ভাবে আলোচনার মাধ্যমে নেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতের জন্য জাতীয় দলের রোডম্যাপও ছকা হয়ে গিয়েছে।

এরপরও যদিও প্রশ্ন উঠছে, আচমকা কেন নেতৃত্ব ছাড়ার ঘোষণা করলেন কোহলি? ভারত অধিনায়ক অবশ্য নিজে জানিয়েছেন, অতিরিক্ত চাপের হাত থেকে মুক্তি পেয়ে ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ করার জন্যই এই সিদ্ধান্ত। যদিও ক্রিকেট মহলের একাংশ মনে করছেন, দীর্ঘদিন ধরেই ব্যাট হাতে বড় স্কোর করতে বারবার ব্যর্থ হচ্ছিলেন কোহলি৷ সেই সঙ্গে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে হারের পরে কোহলির নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন উঠে যায়। এরপরই রোহিত এবং রবি শাস্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেন কোহলি। শাস্ত্রী সম্ভবত তখন তাঁকে ব্যাটিংয়ে মন দেওয়ার কথা বলেন। এরপরই বোর্ডের তরফেও চিন্তাভাবনা শুরু হয়৷ যার ফলস্বরূপ কোহলির ক্যাপ্টেন্সি ছাড়ার এই ঘোষণা।

অন্যদিকে, মহেন্দ্র সিং ধোনিকে নিয়ে যদিও অন্যরকম কিছু পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় বোর্ডের। ধোনি মেন্টরের দায়িত্ব গ্রহণ করা মাত্রই বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি জানিয়েছিলেন, টি-২০ বিশ্বকাপে ধোনির অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগানোর সবথেকে ভালো উপায় হল ভারতীয় দলে ওঁর অন্তর্ভুক্তি। অর্থাৎ এই টুর্নামেন্টে ধোনির অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে ভারতীয় দলের জয় হাসিল করাই বিসিসিআইয়ের প্রধান লক্ষ্য। এ কথা যে শুধু সৌরভই বলছেন তা কিন্তু নয়! ধোনি ভারতের মেন্টর হওয়ার পর তাঁর অভিজ্ঞতা যে দলকে আরও সমৃদ্ধ করে তুলবে এ কথা মনে করছেন ক্রিকেটমহলের অনেকেই।

ইতিমধ্যেই বছর খানেক আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন ক্যাপ্টেন কুল। আইপিএল শেষ হওয়ার পর তাই তাঁকে ক্রিকেটের ময়দান থেকে দূরে যেতে দিতে রাজি নয় বিসিসিআই। তার উপর জাতীয় দলের কোচ হিসেবে টি-২০ বিশ্বকাপের পরই বর্তমান রবি শাস্ত্রীর কোচ মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তাই তাঁর বদলে কি এবার ধোনিকে নিয়েই দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করছে বোর্ড? এ বিষয়ে যদিও কিছু খোলসা করে জানানো হয়নি। তবে ধোনির ভবিষ্যতের দিকে আপাতত তাকিয়ে ক্রিকেট বিশ্ব।