দ্বিতীয় দফার ভোটের সকালে নন্দীগ্রামে আত্মঘাতী বিজেপি কর্মী!

দ্বিতীয় দফার ভোটের সকালে নন্দীগ্রামে আত্মঘাতী বিজেপি কর্মী!
দ্বিতীয় দফার ভোটের সকালে নন্দীগ্রামে আত্মঘাতী বিজেপি কর্মী! / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আজ দ্বিতীয় দফার ভোট। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে রাজ্যের ৩০ আসনে ভোটগ্রহণ। আজ দ্বিতীয় দফার ভোটে ৩০ আসনের ভোটের মধ্যে হাইভোল্টেজ কেন্দ্র হল পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম। তার মূল কারণ এই নন্দীগ্রাম আসনে মুখোমুখি লড়াই করছেন তৃণমূলের হয়ে খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর বিপরীতে রয়েছেন বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী। তিনি আগে তৃণমূলের প্রাক্তন মন্ত্রী ছিলেন। এই কেন্দ্রে কমিশনের কড়া নজর রয়েছে।

সকাল থেকেই শুরু হয়ে গেছে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া। এদিকে ভোটের সকালে নন্দীগ্রামের ১ নম্বর ব্লকের পূর্ব ভেকুটিয়ায় এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। মৃত ওই বিজেপি কর্মীর নাম উদয়শঙ্কর দুবে। অভিযোগ, বুধবার রাতে রাজ্যের শাসকদলের পক্ষ থেকে ওই ব্যক্তিকে হুমকি দেওয়া হয়।

মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকেও দাবি করা হয়েছে যে, কয়েকদিন ধরেই তাঁকে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। সেই আতঙ্কেই তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন। অন্যদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে যে, দীর্ঘদিন ধরেই ওই ব্যক্তি বিজেপির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বিজেপির সক্রিয় কর্মী বলেই এলাকায় তাঁর পরিচিতি ছিল। অভিযোগ, সেই জন্যই বারবার তাঁকে তৃণমূলের হুমকির মুখে পড়তে হচ্ছিল।

মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে এও অভিযোগ করা হয় যে, বুধবার গভীর রাতে একদল তৃণমূল কর্মী তাঁদের বাড়িতে যান। হুমকি দেওয়া হয় যে, ভোট দিতে না দেওয়ার জন্য। এই ঘটনায় আতঙ্কে ছিলেন ওই বিজেপি কর্মী। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় বাড়ি থেকেই। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। এমনিতেই এবারের বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম হাইভোল্টেজ কেন্দ্র। তার উপর এই কেন্দ্রতেই বিজেপির কর্মীর রহস্যমৃত্যু।

এদিকে তৃণমূলের হুমকির জেরে বিজেপি কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে, অভিযোগ তুলে পথে নামেন বিজেপি কর্মীরা। এর জেরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। অভিযুক্তদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি তুলেছেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

অন্যদিকে, তৃণমূলের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে যে, ওই বিজেপি কর্মীর পরিবারে দীর্ঘদিন ধরেই অশান্তি চলছিল। ফলে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। এর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। পুলিশ সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.