অবশেষে বাংলায় ঢুকল জাওয়াদ! রাজ্যের এইসব জেলায় বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা

অবশেষে বাংলায় ঢুকল জাওয়াদ! রাজ্যের এইসব জেলায় বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা
অবশেষে বাংলায় ঢুকল জাওয়াদ! রাজ্যের এইসব জেলায় বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ শক্তি হারিয়ে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। আর এর প্রভাবে বাংলায় রবিবার দুপুর থেকেই বৃষ্টি হয়ে চলেছে। উল্লেখ্য, শনিবারই শক্তি হারিয়ে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ গভীর নিম্নচাপে হয়েছিল। রবিবার সকালে তা আরও শক্তিক্ষয় করে সাধারণ নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে এবং ঘণ্টায় ১১ কিলোমিটার গতিবেগে ওড়িশা উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে বলে জানিয়েছিল আবহাওয়া দফতর। রবিবার তারা জানিয়েছে ‘জওয়াদ’-এর জন্য গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। শীতের মরশুমে, এমন বৃষ্টিপাতের জেরে তাপমাত্রার পারদও নেমেছে। এদিকে, ‘জওয়াদ’ উপকূলে প্রবেশ না করলেও দিঘার সমুদ্রে তীব্র জলোচ্ছ্বাস শুরু হয়েছে রবিবার সকাল থেকেই। উত্তাল পুরীর সমুদ্রও।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে আগেই জানানো হয়েছিল যে, সোমবারেও চলবে বৃষ্টিপাত। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের ৬ জেলায়। মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে আস্তে আস্তে আকাশ পরিষ্কার হবে। আজ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা রয়েছে।

অন্যদিকে, ‘জওয়াদ’ বাংলায় না ঢুকলেও, রবিবার সকাল থেকেই মুখভার আকাশের। কলকাতা, হুগলি, হাওড়া-সহ রাজ্যের বেশ কিছু জেলায় রবিবার সকাল থেকে বৃষ্টিও শুরু হয়েছে। হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, সোমবারও বঙ্গে চলবে বৃষ্টিপাত। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের হাওড়া, হুগলি, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ এবং দুই বর্ধমান বীরভূমে সারাদিনই বৃষ্টির হবে। বৃষ্টি হবে দুই মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামে। সোমবার অতি ভারী বৃষ্টি হবে নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, উত্তর ২৪ পরগনায়। দক্ষিণবঙ্গ জুড়েই চলবে ঝোড়ো হাওয়া। এদিন ঘণ্টায় ৩০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। এরপর আগামী ৭ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার থেকে বৃষ্টি কমবে এবং আকাশ পরিষ্কার হতে শুরু করবে।

শীতের মরশুমে, এমন বৃষ্টিপাতের জেরে তাপমাত্রার পারদও নেমেছে। এখন প্রশ্ন এই পরিস্থিতি কাটবে কবে? আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাঞ্চলী অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, জাওয়াদ গভীর এবং সুস্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হয়ে পুরীর দিকে অগ্রসর হবে এবং তা বাংলায় আছড়ে পড়বে। তিনি আরও জানিয়েছিলেন যে, সোমবারও বৃষ্টি হবে এবং বৃষ্টি বিকেলের দিকে আরও বাড়বে। তবে, মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে পরিস্থিতির উন্নতি হবে। আজও শহর কলকাতার আকাশ মেঘলাই থাকবে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বৃষ্টি বাড়বে, কমবে তাপমাত্রা। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকতে পারে ১৯ ডিগ্রির কাছাকাছি। বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা অনেকটাই কমেছে। শীত শীত ভাব অনুভূত হলেও, এখনও পাকাপাকিভাবে ঠাণ্ডা পড়েনি।

এ প্রসঙ্গে আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, এই মাসের শেষের দিকেই সম্ভবত কমতে শুরু করবে তাপমাত্রার পারদ। যতদিন পর্যন্ত উত্তুরে হাওয়ার রাজ্যে প্রবেশের ক্ষেত্রে বাধা থাকবে ততদিন রাজ্যের তাপমাত্রার পারদ কমবে না। বাধাহীনভাবে হিমেল বাতাস প্রবেশ করতে শুরু করলেই এই পারদ পতন হবে। যদিও কবে থেকে পড়বে শীত তা এখনও নির্দিষ্ট করে জানাতে পারছেন না আবহাওয়াবিদরা।