‘বাংলা চায় না দিদি-ভাইপোর হিংসার খেলা’! বর্ধমানের জনসভা থেকে আর কী বললেন মোদী?

'বাংলা চায় না দিদি-ভাইপোর হিংসার খেলা'! বর্ধমানের জনসভা থেকে আর কী বললেন মোদী?
'বাংলা চায় না দিদি-ভাইপোর হিংসার খেলা'! বর্ধমানের জনসভা থেকে আর কী বললেন মোদী?

রাজ্যে ইতিমধ্যেই চার দফায় ভোটগ্রহণ শেষ। বাকি আরও চার দফা। পঞ্চম দফা ভোটের আগেই রাজ্যে ফের জনসভা নরেন্দ্র মোদীর। মঙ্গলবার, রাজ্যে সভার পাশাপাশি প্রচারও সারবেন তিনি৷ তবে এদিন প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে বেশ অস্বস্তিতে তৃণমূল। সভা থেকে সরাসরি মোদীর মন্তব্য, “বাংলায় আর দরকার নেই দিদি দুঃশাসন। চাই আসন পরিবর্তন। বাংলা চায় না দিদি -ভাইপোর হিংসার খেলা।” পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, “দিদি কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে নিজের কর্মীদের উসকাচ্ছেন। বাংলা কোনদিন ভুলবে না আপনার তোলাবাজ, আপনার সিন্ডিকেট সিস্টেম। এই জন্য বাংলা আজ ‘সোনার বাংলা’র সঙ্গে রয়েছে।”

পঞ্চম দফা ভোটের আগে জনসভা থেকে মোদীর বক্তব্য, “হাফ ভোটেই তৃণমূল সাফ। চার দফাতেই সেঞ্চুরি করেছে বিজেপি। দিদি-ভাইপোর কুশাসন নয়, এবার বাংলায় মানুষ সুশাসনের জন্য আসল পরিবর্তন চাইছে। তাই বদল নিশ্চিত। দিদি যাচ্ছেন, পদ্ম পাপড়ি মেলছে। বাংলার ভালোর জন্য কঠোর পরিশ্রম করবে বিজেপি সরকার।” পাশাপাশি মোদী এও বলেন, তৃণমূল আমলে দলিত, তফশিলি জাতি-উপজাতির মানুষদের অবস্থা বেশ শোচনীয়৷ এমনকি তাঁদের অপমান করা হচ্ছে বলেও বর্তমান রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মোদী।

এসবের পাশাপাশিই কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে নিজের কর্মীদের উস্কাচ্ছেন দিদি, এমন অভিযোগও এনেছেন মোদী। এই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “দিদির ঘনিষ্ঠরা বলেছেন বিজেপিকে ভোট দিলে বাইরে ফেলে দেবে। ওনার এক মন্ত্রী একথা বলছেন। দিদি কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে নিজের কর্মীদের উসকাচ্ছেন। দিদি আপনার রাগের কারণ থাকলে আমার উপর দেখান। আমাকে গালি দিন। কিন্তু দিদি শুনে নিন, বাংলার অপমান করবেন না। আপনার তোলাবাজ, আপনার সিন্ডিকেট সিস্টেম বাংলা কোনদিন ভুলবে না।” এরপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খেলা যে ভেস্তে গিয়েছে, এমন কথাও বলেন নমো।

শীতলকুচির প্রসঙ্গেও মমতার বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মোদী। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “কোচবিহারে যারা মরেছেন, তারাও কোনও মায়ের ছেলে ছিলেন। কিন্তু মমতার নীতি কত মায়ের থেকে ছেলেকে কেড়ে নিয়েছে। এই নির্বাচনে আমরা শোভা মজুমদারকে হারিয়েছি। দিদির গুণ্ডারা শোভা মজুমদারকে এমন মেরেছিল, সেই ছবি সামনে থেকে হারিয়ে গিয়েছিল। বিহার পূর্ণিয়া জেলার এক মা ও ছেলের চিতা একসঙ্গে জ্বলবে। মায়ের মৃত্যু ছেলের মৃত্যুর শোকে হয়েছে। এই পুলিশ অফিসার নিজের কর্তব্য পালনে এসেছিল। কিন্তু এখানে পিটিয়ে পিটিয়ে ওই পুলিশের হত্যা করেছে। দিদি ওই মহিলাই কি আপনার মা নন?” সেই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার ১০ বছর ধরে বাংলায় দুনীর্তি করেছে বলেও অভিযোগ তুলেছেন নরেন্দ্র মোদী। তৃণমূলকে চাপে রেখে এরপর তাঁর মন্তব্য, “দিদি গেলে যে আর ফিরবেন না”।