করোনা সংকটকালে বঙ্গ থেকে অন্য রাজ্যে অক্সিজেন রপ্তানি বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়ে, কেন্দ্রকে চিঠি রাজ্যের

করোনা সংকটকালে বঙ্গ থেকে অন্য রাজ্যে অক্সিজেন রপ্তানি বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়ে, কেন্দ্রকে চিঠি রাজ্যের
করোনা সংকটকালে বঙ্গ থেকে অন্য রাজ্যে অক্সিজেন রপ্তানি বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়ে, কেন্দ্রকে চিঠি রাজ্যের / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশজুড়ে ভয়ঙ্কর করোনা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। দেশজুড়ে বাড়ছে সংক্রমণ। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। প্রতিদিন সংক্রমণের নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হচ্ছে। সুস্থতার হারও বেশ কম। সংক্রমণ বাড়তে থাকায়, হাসপাতালে বেড পাওয়া যাচ্ছে না। তার পাশাপাশি অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে বিভিন্ন রাজ্যে।

এদিকে ভোটের আবহে বাংলাতেও সংক্রমণ বাড়ছে। এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে মৃত্যুও। এই পরিস্থিতিতে বাংলাতে অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে উদ্যোগ নিল রাজ্য প্রশাসন। রাজ্যে উৎপাদিত অক্সিজেন যেন ভিন রাজ্যে পাঠানো না হয়, সেই জন্য কেন্দ্রকে চিঠি লিখে অনুরোধ করল রাজ্য।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রকে বিষয়টি চিঠি লিখে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। স্বাস্থ্যদপ্তর সূত্রে খবর, রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে, তার জন্য আরও অক্সিজেনের প্রয়োজন হতে পারে। সেই কথা মাথায় রেখেই, কেন্দ্রকে এই আবেদন করা হয়েছে। রাজ্যে সরকারি, আধা সরকারি ও বেসরকারিভাবে যে পরিমাণ অক্সিজেন উৎপাদিত হয়, তার পুরোটাই রাজ্যের করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা প্রয়োজন এই মুহূর্তে, তেমনটাই মনে করছে রাজ্য প্রশাসন।

সূত্রের খবর, এ রাজ্যে চিকিৎসার জন্য দৈনিক ৪৫০ মেট্রিক টন অক্সিজেন প্রয়োজন। কিন্তু ২০০ মেট্রিক টন ভিন রাজ্যে সরবরাহ করা হচ্ছে কেন্দ্রের নির্দেশে। ফলে নিজ রাজ্যে অক্সিজেন সরবরাহে টান পড়ছে। এ নিয়ে শুক্রবার দুর্গাপুরে ভার্চুয়াল সভা থেকে কেন্দ্রের ভূমিকার সমালোচনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি আজ বলেন, বাংলা থেকে উত্তরপ্রদেশে অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে। এই তথ্য তুলে ধরে, তাঁর প্রশ্ন, বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে এভাবে অক্সিজেন দিলে, বাংলা কোথা থেকে পর্যাপ্ত অক্সিজেনের জোগান পাবে নিজেদের রাজ্যের প্রয়োজনের জন্য?

এমনকী এদিন ফের একবার টিকা সরবরাহ নিয়েও তিনি অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, ‘গুজরাটে ৬০ শতাংশ টিকা দেওয়া হয়েছে। আর বাকি টিকা অন্যান্য রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে। বাংলায় সবচেয়ে কম ভ্যাকসিন দিচ্ছে কেন্দ্র সরকার।’

এই মূহুর্তে দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ায় চিকিৎসা ব্যবস্থা প্রায় ভেঙে পড়ার মুখে। সব থেকে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণ অক্সিজেনের অভাব। করোনার মিউট্যান্ট ভাইরাসে শ্বাসকষ্টের সমস্যা সবথেকে বেশি হচ্ছে। আর যে কোনও বয়সি আক্রান্তদের মধ্যেই এই শ্বাসকষ্টের সমস্যা সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে। তাই যে কোনও মুহূর্তে চিকিৎসার জন্য অনেক বেশি পরিমাণে অক্সিজেনের প্রয়োজন হচ্ছে বা হবে।

এদিকে, অক্সিজেনের উৎপাদন এবং সরবরাহ যথাযথ রাখতে বৃহস্পতিবারই উৎপাদন সংস্থা ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করে একাধিক নির্দেশিকা জারি করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

অক্সিজেন সরবরাহে রেল, বায়ুসেনাকে ব্যবহার করার পাশাপাশি আন্তঃরাজ্য পরিবহণে কোথাও অক্সিজেনবাহী গাড়িকে আটকানো যাবে না বলেও জানানো হয়েছে। তবে, এসবের মাঝে করোনা আক্রান্ত মানুষ যাতে অক্সিজেনের অভাবে মারা না যান, তাই এই রাজ্য থেকে অন্যত্র অক্সিজেন রপ্তানি যাতে বন্ধ থাকে, সেই মর্মে কেন্দ্রকে আবেদন জানিয়ে চিঠি পাঠাল রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তর।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.