বাংলায় কি আরও বৃষ্টির সম্ভবনা? না বিদায় নেবে বৃষ্টি, কী জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর?

বাংলায় কি আরও বৃষ্টির সম্ভবনা? না বিদায় নেবে বৃষ্টি, কী জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর?
বাংলায় কি আরও বৃষ্টির সম্ভবনা? না বিদায় নেবে বৃষ্টি, কী জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর? / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ গত সপ্তাহের টানা দুর্যোগের পরে জেরবার বাংলায় মানুষ। এখনও বিভিন্ন জেলায় জমা জল সরেনি। একটানা বৃষ্টি এবং জল ছাড়ার কারণে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। চাষের প্রভূত ক্ষতি হয়েছে। ভেঙে পড়েছে বাড়ি। এই পরিস্থিতিতে আবারও কী বৃষ্টি নামবে? নতুন করে দুর্যোগের কালো মেঘ ঘনাবে? এই প্রশ্নই এখন বাংলার মানুষের মনে। সেই সঙ্গে আর কয়েক দিন পরেই শুরু হয়ে যাচ্ছে দুর্গা পুজো।

এই পরিস্থিতিতে আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে যে, উত্তরবঙ্গে দুদিন বৃষ্টি হওয়ার পর, এবার বৃষ্টি কমবে। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে সব জেলায়। আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে বৃষ্টি তুলনামূলকভাবে কিছুটা বেশি হবে। দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে এই সপ্তাহে। এর মধ্যে তুলনামূলক বেশি বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে মুর্শিদাবাদ ও বীরভূমে।

অন্যদিকে, উত্তর-পশ্চিম ভারতে ধীরে ধীরে শুরু হবে শুষ্ক আবহাওয়া। আবহাওয়াবিদরা মনে করছেন কাল বুধবার উত্তর-পশ্চিম ভারতের কিছু অংশে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বিদায় নিতে পারে। পশ্চিম রাজস্থান, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, চন্ডিগড়, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশের কিছু অংশে এই বিদায় পর্ব শুরু হবে।

জানা গিয়েছে, পূর্ব বিহার ও সংলগ্ন এলাকার নিম্নচাপ শক্তি হারিয়েছে। উত্তরবঙ্গে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরের মধ্যভাগে তৈরি হয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত। এটি তামিলনাডু উপকূল পর্যন্ত বিস্তৃত। এই ঘূর্ণাবর্ত থেকে একটি অক্ষরেখা কর্নাটক উপকূল পর্যন্ত বিস্তৃত। এটি লাক্ষাদ্বীপের উপর দিয়ে গেছে।

তবে, আবহাওয়া দফতর থেকে স্বস্তি দিয়ে জানানো হয়েছে যে, উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির কোনও সম্ভবনা নেই। উত্তরবঙ্গে বৃষ্টি কমবে। তবে, বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে উত্তরবঙ্গের সব জেলাতেই। বজ্র বিদ্যুৎসহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা বেশি হওয়ার সম্ভাবনা।

আবার দক্ষিণবঙ্গেও ভারী বৃষ্টির কোনও সর্তকতা নেই আপাতত। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ দু-এক পশলা বৃষ্টি হতে পারে বিক্ষিপ্তভাবে। সেই সম্ভাবনাও খুবই সামান্য। মুর্শিদাবাদ বীরভূমে দু-এক পশলা হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি এবং বজ্রপাতের আশঙ্কা। তবে, তাপমাত্রা বাড়বে সঙ্গে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিও বজায় থাকবে। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

কলকাতায় আজ আংশিক মেঘলা থাকবে আকাশ। বজ্রবিদ্যুৎ সহ দু-এক পশলা হালকা বৃষ্টির সামান্য সম্ভাবনা থাকলেও, তাপমাত্রা স্বাভাবিকের উপরে থাকবে। জলীয় বাষ্প বেশি থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি বাড়বে। আজ সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস স্বাভাবিকের ২ ডিগ্রি উপরে। গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস স্বাভাবিকের ১ ডিগ্রি ওপরে। জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ৬৭ থেকে ৯৫ শতাংশ।