বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

বিয়েবাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করে ফেরার পথে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা! শিশু-সহ মৃত ৪

আত্রেয়ী সেন | তনুজ জৈন

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২২, ০১:৩৪ পিএম | আপডেট: জুন ২৪, ২০২২, ১০:১৪ পিএম

বিয়েবাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করে ফেরার পথে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা! শিশু-সহ মৃত ৪
বিয়েবাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করে ফেরার পথে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা! শিশু-সহ মৃত ৪

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদহঃ বিয়ে বাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে গিয়েছিলেন। সেই নিমন্ত্রণ সেরে ফেরার পথেই ঘটল মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। এমনটা যে হতে চলেছে আর কিছুক্ষণের মধ্যেই, তাই কল্পনাও করতে পারেননি বিয়েবাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে যাওয়া সেই মানুষগুলোই। ফেরার পথেই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটল। এর জেরে এক শিশু-সহ মৃত্যু হল ৪ জনের। 

মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা ঘটেছে মালদহের হবিবপুর থানার জাজল গ্রাম পঞ্চায়েতের গোয়ালবাড়ি এলাকায়। জানা গিয়েছে, যে চারজনের এই দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে তাঁরা হলেন, অমল মাহাতো বয়স(৪০) বছর। তার স্ত্রী শুকুর মনি মাহাতো বয়স(৩৫) সুকুমার টুডু বয়স(৪০) বছর। অভিজিৎ হাসদা বয়স(৪) বছর। এদের প্রত্যেকের বাড়ি বাড়ি হবিবপুর থানার কানতুর্কা গ্রাম পঞ্চায়েতের লানসা এলাকায়। 

পরিবার এবং পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, লানসা এলাকা থেকে একটি ভুটভুটি-তে করে ১২ জন একটি বিয়েবাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে গিয়েছিলেন হবিবপুর থানার মানিকরা এলাকায়। এদিকে, নিমন্ত্রণ খেয়ে ফেরার পথে গোয়ালবাড়ি এলাকায় একটি পিকআপ ভ্যান ওই ভুটভুটিতে ধাক্কা মারে। এর জেরেই এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার পর প্রথমে স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্যগেই দুর্ঘটনাগ্রস্তদের তড়িঘড়ি উদ্ধার করে  প্রত্যেককে স্থানীয় বুলবুলচন্ডী আর এন রায় গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসা চলাকালীন এক ৪ বছরের শিশু অভিজিৎ হাঁসদা ও শুকুরমণি নামে দু’জনের মৃত্যু হয়।

এদিকে, বাকিদের উদ্ধার করে রাতেই মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয় চিকিৎসার জন্য। কিন্তু এখানেও চিকিৎসা চলাকালীন অমল মাহাত এবং সুকুমার টুডুর মৃত্যু হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন মিরা সোরেন, বয়স ৪০ বছর, প্রমীলা সোরেন, বয়স ৩২ বছর এবং বছর ৩৫ এর মঙ্গল মার্ডি। এদের অবস্থাও সাহঙ্কাজনক বলেই জানা গিয়েছে। এই দুর্ঘটনায় মৃতদের দেহ ইতিমধ্যেই ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। এদিকে, এই ঘটনায় শোকের ছায়া মৃতদের পরিবার-সহ গোটা গ্রামে।