রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যের এই সকল মহিলারা আর পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! দেখুন তালিকা

মৌসুমী মোদক

প্রকাশিত: আগস্ট ২৭, ২০২২, ১১:৩৭ এএম | আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০২২, ১১:৩৭ এএম

সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যের এই সকল মহিলারা আর পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! দেখুন তালিকা
সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যের এই সকল মহিলারা আর পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! দেখুন তালিকা

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‍‍`লক্ষ্মীর ভাণ্ডার‍‍` প্রকল্পের ঘোষণা করেছিলেন। রাজ্যের মহিলাদের আর্থিকভাবে সাবলম্বী করে তোলার জন্য এই প্রকল্পের সূচনা হয়েছিল। মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ইতিমধ্যেই লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের মহিলাদের আর্থিক সহায়তা দেওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। প্রকল্পটির মাধ্যমে রাজ্যের সাধারণ ক্যাটাগরির মহিলাদের প্রতি মাসে ৫০০ টাকা এবং তপশিলি ও আদিবাসী মহিলাদের প্রতি মাসে ১০০০ টাকা করে দেওয়া হচ্ছে।

লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের মাধ্যমে রাজ্যের আবেদনকারী মহিলাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি নগদ দেওয়ার বন্দোবস্ত করা হয়। তবে আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে রাজ্যের বহু মহিলাই এই টাকা পাবেন না। কারা কারা এই টাকা পাবেন না? লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পাওয়ার কিছু শর্ত রয়েছে। যারা এই শর্ত মানছেন না তাদের অ্যাকাউন্টে এবার থেকে আর ঢুকবে না এই টাকা। আসলে গত কয়েক মাস ধরে এই প্রকল্প নিয়ে নানা ধরনের সমীক্ষা চালায় রাজ্য। এরপরই প্রকল্পে স্বচ্ছতা আনার পরিপ্রেক্ষিতে এই কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছে রাজ্য।

এবার দেখে নেওয়া যাক, আগামী সেপ্টেম্বর থেকে কারা আর লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পাবেন না!

১. যে সকল মহিলা রাজ্য সরকারের অন্যান্য আর্থিক ভাতার সুবিধা নিয়েও এই প্রকল্পের আওতায় নাম লিখিয়েছেন, তারা আর লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পাবেন না।

২.  সরকারি চাকরি করেও অনেকে এই প্রকল্পের আওয়াত নিজেদের নাম লিখিয়েছেন। এবার তাদের নাম বাদ যাচ্ছে।

৩. বহু সাধারণ শ্রেণীর মহিলাই বেশি টাকা পাওয়ার লোভে নিজেদের ওবিসি অথবা অন্য কোন শ্রেণীর বলে ভুয়ো তথ্য দিয়েছেন। তাদের নামও তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে।

৪. বহু মহিলাই নিজেদের বয়স ২৫ বছর না হলেও জাল সার্টিফিকেট বানিয়ে বয়স বাড়িয়ে এই প্রকল্পের আওতায় নাম লিখিয়েছেন। তারাও এবার বাদ পড়ছেন।

৫. একজন মহিলার এই প্রকল্পের আওতায় দু’তিনটি অ্যাকাউন্ট থাকলে তাদের নামও বাদ পড়তে চলেছে।

৬. অনেকের আবার নিজস্ব ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট না থাকার কারণে জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট দিয়েছেন। এই ক্ষেত্রেও অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

৭. ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকা সত্ত্বেও অনেকে কেওয়াইসি সম্পূর্ণ করেননি। তারা যতদিন না কেওয়াইসি পূরণ করছেন ততদিন আর অ্যাকাউন্টে  টাকা ঢুকবে না।