শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

নেতা মন্ত্রীদের পাড়ায় ঢোকা নিষেধ! পঞ্চায়েত ভোটের আগে গ্রামবাসীদের ফরমান ঘিরে শোরগোল

মৌসুমী

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ০৭:৪৭ পিএম | আপডেট: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ০৭:৪৭ পিএম

নেতা মন্ত্রীদের পাড়ায় ঢোকা নিষেধ! পঞ্চায়েত ভোটের আগে গ্রামবাসীদের ফরমান ঘিরে শোরগোল
নেতা মন্ত্রীদের পাড়ায় ঢোকা নিষেধ! পঞ্চায়েত ভোটের আগে গ্রামবাসীদের ফরমান ঘিরে শোরগোল

সামনে পঞ্চায়েত নির্বাচন। তার আগে নতুন কর্মসূচি নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে এলাকাবাসীদের অভাব অভিযোগের খোঁজ খবর নিচ্ছেন বিধায়ক থেকে মন্ত্রীরা। বেশ কিছু জায়গায় গিয়ে বিক্ষোভের মুখেও পড়তে হচ্ছে দিদির দূতদের। এবার সরাসরি এলাকায় নেতা মন্ত্রীদের প্রবেশ নিষেধ বলে দেওয়ালে লিখে দিল গ্রামবাসীরা। এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহে।

পুরাতন মালদহের মঙ্গলবাড়ী পঞ্চায়েতের পাসিপাড়া এলাকায় একাধিক বাড়ির দেওয়ালে  লিখে দেওয়া হয়েছে, "নেতা মন্ত্রীদের এই পাড়ায় ঢোকা নিষেধ"। তাদের অভিযোগ ওই এলাকার রাস্তা খারাপ বহুদিন থেকে। বলা ভালো রাস্তা নেই ওই এলাকায়। এই নিয়ে বহুবার সাংসদ খগেন মুর্মুর কাছে দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি কিছুই। অবশেষে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

গ্রামবাসীরা অভিযোগ, "আমরা এখানে পানীয় জলও ঠিকঠাক ভাবে পাইনা। ভোটের পর ভোট আসে, কিন্তু রাজনৈতিক দলের নেতারা এসে শুধুই প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরি ছুটিয়ে যান। আর ভোট চলে গেলেই সবাই আমাদের ভুলে যায়। তাই আমরা ঠিক করেছি, কোনও দিদির দূতকে গ্রামে ঢুকতে দেব না, ঢুকতে এলেই ব্যাপক বিক্ষোভ দেখাবো আমরা। সেই সঙ্গে আমরা আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটও বয়কট করব"।

গ্রামবাসীরা ঠিক করেছেন গ্রামে যাতে দিদির দূত থেকে শুরু করে কোনও নেতা মন্ত্রী প্রবেশ করতে না পারেন, তার জন্য দেওয়ালে লাল কালি দিয়ে লেখা হবে ‘গ্রামে প্রবেশ নিষেধ’। সেই মতোই দেওয়াল লিখন শুরু হয়েছে। শুধু তাই নয় গ্রামের মহিলারা একত্রিত হয়ে দেওয়াল লিখনের পাশাপাশি বিক্ষোভও দেখিয়েছেন। সোমবার দুপুরে এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে মালদহ জেলার পুরাতন মালদা ব্লকের মঙ্গলবাড়ী গ্রাম পঞ্চায়েতের পাশিপাড়া এলাকায়।

এদিকে পুরাতন মালদা ব্লক পঞ্চায়েত সমিতির সভানেত্রী মৃণালিনী মাইতি বলেন, "ওই বুথের পঞ্চায়েত সদস্য বিজেপির ছিলেন। কোন কাজ করেননি। সদ্য তৃণমূলে যোগ দিয়ে মানুষের জন্য কাজ করা শুরু করেছেন। বিরোধীরা মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। এসব বিরোধীদের চক্রান্ত"।