শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০২২

হাওড়ার বোটানিক্যাল গার্ডেন থেকে চুরি দুষ্প্রাপ্য শ্বেত চন্দন গাছ! তদন্তে পুলিশ

মৌসুমী

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ০৩:৫৩ পিএম | আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ০৩:৫৩ পিএম

হাওড়ার বোটানিক্যাল গার্ডেন থেকে চুরি দুষ্প্রাপ্য শ্বেত চন্দন গাছ! তদন্তে পুলিশ
হাওড়ার বোটানিক্যাল গার্ডেন থেকে চুরি দুষ্প্রাপ্য শ্বেত চন্দন গাছ! তদন্তে পুলিশ

শিবপুর বোটানিক্যাল গার্ডেন থেকে দুষ্প্রাপ্য সাদা গাছ চুরির অভিযোগ। বোটানিক্যাল গার্ডেনের মধ্যে এক নম্বর নার্সারীর মধ্যে ১০০ বছরের পুরানো একটি দুষ্প্রাপ্য সাদা চন্দন গাছ ছিল। সেই গাছটি চুরি হয়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ইতিমধ্যেই তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, আমফান ঘূর্ণিঝড়ের সময় ওই শ্বেত চন্দন গাছটির ক্ষতি হয়। গাছের উপরের অংশের ডাল ভেঙে যাওয়ার পর ধীরে ধীরে গাছটি শুকিয়ে যায়। দিন কয়েক আগে থেকে ওই গাছটিকে আর দেখা যাচ্ছে না। গার্ডেনের মর্নিং ওয়াকার্স অ্যাসোসিয়েশনের অভিযোগ, অধিকর্তার মদতে কোটি টাকা দামি ওই গাছটিকে কেটে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় গাছটি কাটার পর শিকড় সমেত তুলে নেওয়া হয় এবং ওই জায়গায় সিমেন্ট দিয়ে বাঁধিয়ে দেওয়া হয়।

মর্নিং ওয়াকারস অ্যাসোসিয়েশন প্রশ্ন তুলেছে, কিভাবে কোন টেন্ডার ছাড়াই গাছটিকে কেটে বিক্রি করে দেওয়া হল ? ডেইলি মর্নিং ওয়াকার অ্যাসোসিয়েশনের আরো অভিযোগ, এর আগে একটি দামি এবং দুষ্প্রাপ্য মেহগনি গাছ একই কায়দায় কেটে বিক্রি করে দেওয়া হয়। এই নিয়ে হাওড়া আদালতে মামলা চলছে।

এদিকে চন্দন গাছ চুরি নিয়ে হইচই শুরু হতেই গার্ডেন কর্তৃপক্ষ গেটে একটি নোটিশ টাঙিয়ে দেয়। তাতে বলা হয়েছে কেউ ফুল , গাছের ক্ষতি  বা বাগানের ক্ষতি করলে মোটা অংকের টাকা জরিমানা দিতে হবে। শুধু তাই নয় ভিডিওগ্রাফি করলে এক হাজার টাকা জরিমানা। এই নির্দেশের প্রেক্ষিতে শুরু হয়েছে বিতর্ক। কারণ কার নির্দেশ এই নোটিশ দেওয়া হয়েছে সেখানে কোন আধিকারীকের কোন সই নেই।

শিবপুর বোটানিক্যাল গার্ডেনে প্রায় ১৪০০ প্রজাতির গাছ রয়েছে। প্রত্যেকটি গাছের বর্ণনা কম্পিউটারে নথিভুক্ত আছে। তাই গাছ চুরি আগেই অফিসারদের নজরে আসার উচিত ছিল বলে মনে করছেন প্রাতঃ ভ্রমণকারীরা। এদিকে গার্ডেনের  জয়েন্ট ডিরেক্টর দেবেন্দ্র সিংহ জানিয়েছেন তিনি এই মুহূর্তে কোয়েম্বাটরে আছেন । কি হয়েছে তিনি বলতে পারবেন না। গার্ডেনে ফিরে আসার পর সবকিছু দেখে শুনে তিনি বলতে পারবেন।