শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

তৃণমূল বিধায়কের পা টিপে দিচ্ছেন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা! ভাইরাল ছবি ঘিরে তুঙ্গে বিতর্ক

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ১০:৫৭ এএম | আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ১০:৫৭ এএম

তৃণমূল বিধায়কের পা টিপে দিচ্ছেন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা! ভাইরাল ছবি ঘিরে তুঙ্গে বিতর্ক
তৃণমূল বিধায়কের পা টিপে দিচ্ছেন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা! ভাইরাল ছবি ঘিরে তুঙ্গে বিতর্ক

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ শাসকদল তৃণমূলের বিধায়কের পা টিপে দিচ্ছেন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবিই এখন ভাইরাল। যদিও ছবির সত্যতা যাচাই করেনি বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল। ‘দিদির সুরক্ষা কবচ’ কর্মসূচি শেষে দলীয় কর্মীর বাড়িতে বিছানায় হেলান দিয়ে বিশ্রাম নিচ্ছেন তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদার। আর তাঁর পায়ের কাছে বসে বিধায়কের পা টিপে দিচ্ছেন পঞ্চায়েত সদস্যা। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই, তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদারের এই ছবি নিয়ে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে।

ঘটনাটি গত ২০ জানুয়ারির। সেদিন চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার ‘দিদির সুরক্ষা কবচ’ কর্মসূচি করেন তাঁর বিধানসভা দেবানন্দপুর পঞ্চায়েত এলাকায়। সারাদিন ওই এলাকায় কর্মসূচি সারার পর, দলীয় তৃণমূল সদস্য পীযূষ ধরের বাড়িতে রাত কাটান। সেই দলীয় সদস্যের বাড়ির বিছানায় হেলান দিয়ে বসে ছিলেন বিধায়ক। তখনই তৃণমূলের পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য রুমা রায় পাল বিধায়কের পা টিপে দেন। হাসি মুখে বিধায়কের পা টিপে দেওয়ার ছবি রুমা নিজেরই ফেসবুক পেজে শেয়ার করে লিখেছেন, ‘No caption. শুধু বলি আমার গুরু। আমার ভগবান, তাঁর সেবা করে আমি ধন্য।’

এদিকে, এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি পোস্ট হতেই রাজ্যের শাসকদলের বিধায়ককে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি। এই বিষয়ে পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যা বলেন, ‘ওনার এক মাস আগে পায়ে একটা অপারেশন রয়েছে। অনেক সেলাই পড়েছে। দিদির সুরক্ষা কবচ কর্মসূচির পর ওনার পায়ে টান ধরে ছিল। উনি আমাকে মেয়ের মতো স্নেহ করেন। উনি বিধায়ক বলে সেবা করতে পারব না, এটা কোথায় লেখা আছে?’ তবে, ওই ভাইরাল ছবি নিয়ে কটাক্ষ করে বিজেপির হুগলি সাংগঠনিক জেলা সম্পাদক সুরেশ সাউয়ের কটাক্ষ, ‘বিধায়কের পদসেবা করলে তবেই পদ এবং ভোটের টিকিট পাওয়া যায়।’

অন্যদিকে, এই ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদারের সাফাই, তাঁর পায়ে বড় অস্ত্রোপচার হয়েছে, তা নিয়ে ‘দিদির সুরক্ষা কবচ’ কর্মসূচিতে গিয়ে প্রচণ্ড পা ব্যথা হয় তাঁর। তিনি বলেন, ‘আমার একটা বড় অপারেশন হয় এবং ১০৮টা সেলাই হয়েছে।  আমি এখনও সুস্থ নই। চারটে জায়গায় মাংস পচে গিয়েছিল। তারপর আবার সেটার অপারেশন হয়। তারপরেও দলের নির্দেশ মতো দিদির সুরক্ষা কবচ কর্মসূচী করি। তারপরেও যারা এটা নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করে তাদের বাবা-মা শিক্ষা-দীক্ষা দেয়নি।

তিনি আরও বলে, ‘দলের কর্মী হিসাবে নয়, এক জন মেয়ে, এক জন বোন হিসাবে পা টিপে দিয়েছেন রুমা। এতে অন্যায় কিছু নেই। বিজেপির আহাম্মকরা কোনও শিক্ষা পায়নি তাই এ সব বলছে।’